ফেব্রুয়ারির তুলনায় মার্চে ৯ শতাংশ বেশি রেমিটেন্স এসেছে

0
89
BB Bank
বাংলাদেশ ব্যাংকের লোগো

BB Bankঅর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি হলো রেমিটেন্স বা প্রবাসি আয়। বিগত কয়েক মাস রেমিটেন্সের প্রবাহ কিছুটা কম থাকার পর আবার ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে এর প্রবাহ। চলতি বছরের মার্চে ফেব্রুয়ারির তুলনায় প্রায় ৯ শতাংশ বেশি রেমিটেন্স এসেছে। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা গেছে।

এ প্রতিবেদন অনুযায়ী মার্চে প্রবাসী বাংলাদেশিরা ব্যাংক ব্যবস্থার মাধ্যমে দেশে মোট রেমিটেন্স পাঠিয়েছে ১২৭ কোটি ৩৩ লাখ ২০ হাজার মার্কিন ডলার। ফেব্রুয়ারি মাসে প্রবাসীদের পাঠানো বৈদেশিক মুদ্রার পরিমাণ ছিল ১১৭ কোটি ৩১ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার। অর্থাৎ ফেব্রুয়ারির তুলনায় মার্চে রেমিটেন্স বেড়েছে ১০ কোটি এক লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার বা ৮ দশমিক ৫৩ শতাংশ।

এদিকে, দেশের রাজনৈতিক অস্থিরতা, বেসরকারি পর্যায়ে জনশক্তি রপ্তানিতে অনীহা, সর্বোপরি সরকারের কূটনৈতিক ব্যর্থতায় চলতি অর্থবছরে রেমিট্যান্সে নেতিবাচক ধারা বিরাজ করছে। যার কারণে চলতি অর্থবছরে রেমিটেন্স ৩ শতাংশ কমবে বলে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) পূর্বাভাস দিয়েছে। তবে, সরকারিভাবে নানা পদক্ষেপ নেওয়ায় আগামি অর্থবছরে রেমিটেন্সে ৭ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হবে বলে মনে করছেন তারা।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী মার্চে রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন চার বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিটেন্স এসেছে ৩৯ কোটি ৮০ লাখ মার্কিন ডলার। ৩০টি বেসরকারি বাণিজ্যিক ব্যাংকের মাধ্যমে রেমিটেন্স এসেছে ৮৪ কোটি ৬ লাখ ৯০ হাজার মার্কিন ডলার। বিদেশি ব্যাংকগুলোর মাধ্যমে এসেছে ১ কোটি ৯০ লাখ মার্কিন ডলার। একটি বিশেষায়িত ব্যাংকের মাধ্যমে এসেছে ১ কোটি ৫৫ লাখ মার্কিন ডলার।

আলোচ্য সময়ে প্রবাসি বাংলাদেশিরা সবচেয়ে বেশি রেমিটেন্স পাঠিয়েছে বেসরকারি খাতের ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের মাধ্যমে। ব্যাংকটির মাধ্যমে মোট রেমিটেন্স এসেছে প্রায় ৩৪ কোটি মার্কিন ডলার।

মার্চ মাসে বিশেষায়িত বেসিক ব্যাংক, বিডিবিএল, রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক, বিদেশি ন্যাশনাল ব্যাংক অব পাকিস্থানের মাধ্যমে কোনো রেমিটেন্স পাঠায়নি প্রবাসিরা। এছাড়া, নতুন ব্যাংকগুলোর মাধ্যমেও এখন কোনো রেমিটেন্স আসা শুরু করেনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগের হালনাগাদ পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, গত ২০১২-১৩ অর্থবছরের প্রবাসীরা মোট ১ হাজার ৪৪৬ কোটি ১১ লাখ মার্কিন ডলারের সমপরিমাণ রেমিটেন্স দেশে পাঠিয়েছেন। এর আগে ২০১১-১২ অর্থবছরে রেমিটেন্সের পরিমাণ ছিল ১ হাজার ২৮৪ কোটি ডলার।

উল্লেখ্য, বর্তমানে ১৫৭টি দেশে ৮৫ লাখের মতো বাংলাদেশি কর্মরত রয়েছে। বর্তমান সরকারের সাড়ে চার বছরে প্রায় ২০ লাখ ৪২ হাজার শ্রমিক কর্মসংস্থানের উদ্দেশে বিদেশে গেছে।

এসএই/এএস