উদ্যোক্তা তৈরিতে ডিসিসিআই ও আইডিইবির মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

0
49

DCCI_12.12.13_Dominic--2২০১৫ সালের মধ্যে সারাদেশে ২ হাজার নতুন ব্যবসায়ীক উদ্যোক্তা তৈরির লক্ষ্যে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (ডিসিসিআই) এবং ইনিস্টিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার বাংলাদেশ একসাথে কাজ করবে।এ লক্ষ্যে সংগঠন দুটিমাঝে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনিস্টিউশনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ডিসিসিআই ও আইডিইবি মধ্যকার এ সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়। উভয় সংগঠনের সভাপতি চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ডিসিসিআইয়ের সভাপতি মো.সবুর খান,বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক মো.হামিদ,বাংলাদেশ ব্যাংকের এসএমই শাখার মহাব্যবস্থাপক সুকমল সিনহা চৌধুরী,আইডিইবির চেয়ারম্যান একেএম আব্দুল হামিদসহ অন্যান্য ব্যবসায়ী সংগঠন ও বিভিন্ন স্তরের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারেরা।

ঢাকা চেম্বারের সভাপতি সবুর খান বলেন,বাংলাদেশের অর্থনীতির চাকাকে সচল রাখতে ও বিরাট জনশক্তির চাহিদা পূরণে নতুন ব্যবসায়ী উদ্যোক্ততা সৃষ্টির কোনো বিকল্প নেই। এলক্ষ্যে দেশে্র তরুণদের মধ্যে থেকে ২ হাজার নতুন উদ্যেক্তা তৈরির উদ্যেগ গ্রহন করেছে ঢাকা চেম্বার।এর মধ্যে ২০১৫ সালের শহরে ৫০০ প্রোজেক্ট এবং গ্রামীপর্যায়ে ১ হাজার প্রোজেক্ট বাস্তবায়নের পরিকল্পনা গ্রহন করেছে।এ প্রোজেক্টগুলো বাস্তবায়ন হলে এর সাথে দেশের জনসংখ্যার বিরাট অংশ এর সাথে যুক্ত হয়ে দেশের অর্থনীতিতে ভুমিকা রাখেতে পারবে।

এছাড়া ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের মধ্য থেকে ৫০০ উদ্যোক্ততা তৈরি করা হবে।এর মধ্যে কৃষি প্রকৌশলী ও উপদেষ্টা,খাদ্য প্রক্রিয়া,আইসিটি সেক্টর ও মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারের মতো গুরুত্বপূর্ণ খাত রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে প্রতিবছর প্রায় ২০ হাজার তরুণ উচ্চশিক্ষা লাভ করে চাকরির পিছনে ঘুরে।কিন্তু চাকরির জন্য না ঘুরে তারা যদি তাদের জ্ঞান এবং মেধা দিয়ে ব্যাবসার চিন্তা করে ও উদ্যোক্তা হয় তাহলে দেশের কোন সংকট থাকবে না।এসব মেধাবীদের কাজে লাগাতে সরকার উদ্যেগ গ্রহন করলেও তারা সঠিক দিক নির্দেশনা এবং সুযোগের অভাবে উদ্যোক্তা হতে পারে না। এক্ষেত্রে ঢাকা চেম্বার ও আইডিইবির নতুন চুক্তি তাদের সাহায্য করবে।

সবুর খান বলেন, টাকা হলেই উদ্যেক্তা হওয়া যায় না। এজন্য প্রয়োজন সঠিক দিক নির্দেশনা।তাই নতুন উদ্যেক্তাদের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের সাহায্যে একটি ওয়েব সাইট করা হবে। যেখানে উদ্যেক্তা হওয়ার জন্য যেসকল বিষয় দরকার তার সবই দেওয়া থাকবে।

প্রধান অতিথির বক্তৃতায় বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালক ম. হামিদ বলেন,ডিসিসিআইয়ের উদ্যেগের কারণে নতুন নতুন ব্যবসায়ী উদ্যেক্তা তৈরি হয়েছে।বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা বর্তমানে শুধু দেশে নয় দেশের বাহিরে গিয়ে হোটেল-রেষ্টুরেন্ট,ফল,চিকিৎসাসহ নানান ব্যবসায় সফলতা দেখিয়ে আসছে।নতুন উদ্যেক্ততা তৈরি হলে তাদের সাহায্যে বাংলাদেশ টেলিভিশনে সপ্তাহে দুটি প্রোগ্রামে  প্রচারের আশ্বাস দেন তিনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক সুকমল সিনহা চৌধুরী বলেন,নতুন উদ্যেক্তা তৈরিতে বাংলাদেশ ব্যাংক সবসময়ই আগ্রহী। বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে একশ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ দেওয়া হয়। ডিসিসিআই আজ যে পরিকল্পনা করেছে তা বাংলাদেশে প্রথম হলেও অতিশীঘ্রই আরও অনেক সংগঠন এরকম উদ্যেগ নেবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

আইডিইবির সভাপতি একেএম আব্দুল হামিদ বলেন,বাংলাদেশের ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারের মধ্যে ৮০ শতাংশ আমাদের সাথে জড়িত।তাই এখান থেকে ৫০০ নতুন উদ্যেক্তাকে ঢাকা চেম্বার পৃষ্ঠপোষকতা করলে তারা দেশের চাকাকে সচল রাখতে অনেক বড় ভুমিকা রাখতে পারবে।

 

এইউ নয়ন