ঢাবির রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যানসহ ১২ শিক্ষক অবরুদ্ধ!

0
65
DU

DUফলাফল বৈষম্যের অভিযোগ এনে ফল পুনর্মূল্যায়নের দাবিতে আন্দোলন করছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের মাস্টার্স ১ম সেমিস্টারের শিক্ষার্থীরা। এই আন্দোলনের শিকার হয়ে পুরো ৪ঘন্টা অবরুদ্ধ হয়ে থেকেছেন বিভাগের চেয়ারম্যানসহ প্রায় ১২ শিক্ষক।

বুধবার বেলা ১১টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত সামজিক বিজ্ঞান ভবনে টানা ৪ ঘন্টা শিক্ষকদের অবরুদ্ধ করে রাখে শিক্ষার্থীরা।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমদ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে ফলাফল পুনর্মূল্যায়নের আশ্বাস দিয়ে অবরোধ বন্ধ করেন।

জানা যায়, ২০১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্স ১ম সেমিস্টারের ‘ক’ ও খ‘’ শাখার রেজাল্ট ১২ মার্চ প্রকাশ করা হয়। ‘ক’ শাখার শিক্ষার্থী রয়েছে ৯৪ জন। আর ‘খ’ শাখার শিক্ষার্থী রয়েছে ১৩৭জন। রেজাল্টে ‘খ’ শাখার শিক্ষার্থীদের প্রতি বৈষম্য করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছে ওই শাখার শিক্ষার্থীরা।

১৩৭ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে ৩.৫০ প্রদান করা হয় মাত্র ২২ জন শিক্ষার্থীকে। অথচ ‘ক’ শাখার ৯৪ জন শিক্ষার্থীদের মধ্যে ৮৪ জনের রেজাল্টই ৩.৫০ এর উপরে। তাছাড়া ‘খ’ শাখায় ৩.৮১ এর উপরে কোনো শিক্ষার্থী মার্ক পাননি। অথচ ‘ক’ শাখায় ২৩ জন শিক্ষার্থী এই রেজাল্ট পেয়েছে।

এরই প্রতিবাদে মাস্টার্স ১ম সেমিস্টারের ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা গতকাল বিভাগের সামনে মার্কশীটের ফটোকপি পুড়িয়ে আন্দোলন শুরু করে। কিন্তু বিভাগের পক্ষ থেকে কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় বুধবার বিভাগের প্রধান ফটকের গেটে তালা ঝুলিয়ে দেয় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা।

এ সময় বিভাগের অফিসরুমে চেয়ারম্যানসহ প্রায় ১২ জন শিক্ষক অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। এছাড়া, বিভাগের একাডেমিক যেকোনো কাজের জন্য কর্মচারীদেরকেও বাইরে বের হতে দেওয়া হয়নি।

পরে সামজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ঘটনাস্থলে এসে রেজাল্ট পুনর্মূল্যায়নের আশ্বাস দিয়ে অবরোধ বন্ধ করে দেন।

বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. নুরুল আমীন বেপারী বলেন, যেকোনো পরীক্ষার ফলাফল পুনর্মূল্যায়নের এখতিয়ার সিন্ডিকেট কমিটির। এতে আমার একক সিদ্বান্তে কোনো কিছু করার সুযোগ নেই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সামজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, শিক্ষার্থীদের খাতা পুনর্মূল্যায়নের আশ্বাস দেওয়া হয়েছে। পরে মিটিংয়ে এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে জানান তিনি।

এএইচ/এএস