রাজশাহীতে আইটি বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত

0
65
রাবি

রাবিদেশে প্রথমবারের মতো সরকারি উদ্যোগে আইটি শিল্পের উন্নয়নে বিশ্বমানের আইটি বিষেশজ্ঞ তৈরির লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরুর অংশ হিসেবে রাজশাহী অঞ্চলের শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করতে ওরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেট ভবনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রকল্প পরিচালক ও সহকারি সচিব রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য  অধ্যাপক  ড. মুহম্মদ মিজানউদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলে্‌ উপ-উপাচার্য অধ্যাপক সারওয়ার জাহান সজল, সহকারি সচিব সরকার আবুল কালাম আজাদ, কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো. জাহেদুর রহমান প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, বর্তমান বিশ্ব যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে তাল মিলিয়ে চলতে হলে আমাদের জন্য শুধু প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাই পর্যাপ্ত নয়। এর জন্য প্রয়োজন বিশেষ প্রশিক্ষণ। আর সেটা যদি হয় আইটি বিশেষজ্ঞ তৈরির লক্ষ্যে যা বাংলাদেশের মত উন্নয়নশীল দেশে সহজলভ্য নয়। কিন্তু বাংলাদেশ সরকার একটি বিশেষ ব্যবস্থায় সে সুযোগ তরুণ-তরুণীদের করে দেওয়ার লক্ষ্যেই এ প্রকল্প হাতে নিয়েছে।

বক্তারা শিক্ষার্থীদেরকে এ প্রকল্পের আওতায় প্রশিক্ষণ কর্মসূচিতে অংশ নিয়ে বিশ্বমানের আইটি বিশেষজ্ঞ হিসেবে নিজেকে গড়ে তোলার আহ্বান জানান। এ সময় শিক্ষানগরী হিসেবে রাজধানীর বাইরে রাজশাহী হতে সবচেয়ে বেশি আইটি বিশেষজ্ঞ তৈরি হবে বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন তারা।

প্রকল্প সূত্রে জানা যায়, আইটি বা যেকোনো বিষয়ে স্নাতক, এমবিএ, বিবিএ, বিএস এবং প্রকৌশলে ডিপ্লোমা সম্পন্ন করেছেন এমন তরুণ-তরুণীদের ভবিষ্যৎ আইটি বিষেশজ্ঞ হিসেবে গড়ে তুলতে এবং তাদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে বাংলাদেশ সরকারের ‘লিভারেজিং আইসিটি ফর গ্রোথ, এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড গভর্ণেন্স’ প্রকল্পের অধীনে এ কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

প্রথম পর্যায়ে মোট ৮’শ জনকে অনলাইনে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে বাছাই করা হবে। বাছাইয়ের পর চারটি ক্যাটাগরিতে ৬ মাসের প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রথমপর্যায়ে প্রায় চার হাজার আইটি বিষেশজ্ঞ তৈরি করা হবে। প্রশিক্ষণ শেষে আইটি প্রতিষ্ঠানগুলোতে তাদের ভালো বেতনে চাকুরি  নিশ্চিত করা হবে বলেও জানান তারা।

প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের জন্য আগামি ২৮ এপ্রিলের মধ্যে প্রকল্পের ওয়েবসাইটে (www.lict.gov.bd) রেজিস্ট্রশন করতে হবে। অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর অনলাইনে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে ভবিষ্যৎ আইটি বিষেশজ্ঞ হওয়ার জন্য্য প্রার্থী বাছাই করা হবে। প্রশিক্ষণ বা রেজিস্ট্রেশনের জন্য কোনো ফি নেওয়া হবে না। বিশ্বব্যাংকের আর্থিক সহায়তায় সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে এ প্রকল্পটি বাস্তাবায়ন করছে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল।