তরুণদের আইটি প্রশিক্ষণ কাল থেকে শুরু

0
70
আইটি

আইটিদেশে প্রথমবারের মতো সরকারি উদ্যোগে আইটি শিল্পের জন্য বিশ্বমানের আইটি বিষেশজ্ঞ তৈরির লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হচ্ছে রাজশাহীতে। আগামিকাল বুধবার সকাল ১০টায় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যায়ের (রাবি)  সিনেট ভবনে ওরিয়েন্টেশন ক্লাশের মাধ্যমে এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু হবে।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির (রাবিসাস) কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন প্রকল্পের সহকারী এবং সহকারী সচিব মাহফুজুল ইসলাম শামীম।

সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আইটি বা যে কোনো বিষয়ে স্নাতক, এমবিএ, বিবিএ, বিকম, বিএস এবং প্রকৌশলে ডিপ্লোমা রয়েছে এমন তরুণ-তরুণীদের ভবিষ্যৎ আইটি বিষেশজ্ঞ হিসেবে গড়ে তুলতে এবং তাদের কর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে ২ এপ্রিল থেকে সরকারের ‘লিভারেজিং আইসিটি ফর গ্রোথ, এমপ্লয়মেন্ট অ্যান্ড গভর্নেন্স’ প্রকল্পের অধীনে এ কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

এই প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের জন্য আবেদনকারীদের মধ্য থেকে বাছাইকৃতদের প্রশিক্ষণ শেষে চাকরিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। প্রশিক্ষণ বা রেজিস্ট্রেশনের জন্য কোনো ফি নেওয়া হবে না বলে জানান তিনি। প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণের জন্য আগামি ২৮ এপ্রিলের মধ্যে প্রকল্পের ওয়েবসাইটে (www.lict.gov.bd) গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, চার ক্যাটাগরিতে ৬ মাসের প্রশিক্ষণ দিয়ে প্রায় চার হাজার প্রথম পর্যায়ের ভবিষ্যৎ আইটি বিষেশজ্ঞ (এফটিএফএল) তৈরি করা হবে। আইটি বা বিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারীদের আইটি ক্যাটাগরিতে, যে কোনো বিষয়ে স্নাতক ডিগ্রিধারীদের আইটিইএস ক্যাটাগরিতে, এমবিএ, বিবিএ, বিকম, বিএস ডিগ্রিধারীদের ম্যানেজমেন্ট ক্যাটাগরিতে এবং ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের আইটিএসএস ক্যাটাগারিতে প্রশিক্ষণ ও চাকরিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। বিশ্বব্যাংকের ঋণ সহায়তায় সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের এ প্রকল্পটি বাস্তাবায়ন করছে বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল।

প্রথম পর্যায়ে মোট ৯০০ জনকে অনলাইনে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে বাছাই করা হবে। বাছাইয়ের পরই তাদের ঢাকার বাইরে দুই মাস আবাসিক প্রশিক্ষণ, ঢাকায় দুই মাস বিশেষায়িত প্রশিক্ষণ এবং সবশেষে আইটি ইন্ডাস্ট্রিগুলোতে তিন মাস প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। প্রশিক্ষণ শেষ হলে আইটি প্রতিষ্ঠানগুলোতে তাদের ভালো বেতনে চাকরিতে নিয়োগ দেওয়া হবে। অনলাইনে রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর অনলাইনে প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষার মাধ্যমে ভবিষ্যৎ আইটি বিষেশজ্ঞ হওয়ার জন্য প্রার্থী বাছাই করা হবে।

এমআই/সাকি