তিন ঝুঁকিতে দেশের অর্থনীতি: এডিবি

0
84

ADB_Pressবাংলাদেশের অর্থনীতি তিনটি ঝুঁকির মুখোমুখী। ঝুঁকি তিনটি হচ্ছে- রাজনৈতিক অস্থিরতার পুনরাবৃত্তি, রাজস্ব আয়ের ঘাটতি এবং বৈদেশিক সহায়তা ছাড়ে ধীর গতি। এ তিন ঝুঁকি সঠিকভাবে মোকাবেলা করতে না পারলে অর্থনীতিতে সংকট অনিবার্য হয়ে উঠতে পারে।

এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি) বাংলাদেশের সাম্প্রতিক অর্থনীতির মূল্যায়ন করতে গিয়ে এ তিন ঝুঁকির কথা বলেছে। মঙ্গলবার গত প্রান্তিকের অর্থনৈতিক অবস্থা সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করে সংস্থাটি। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নিজস্ব কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এটি প্রকাশ করা হয়। এতে প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন সংস্থার সিনিয়র অর্থনীতিবিদ ড. জাহিদ হোসেন। এ সময় আবাসিক প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।

ড. জাহিদ বলেন, ২০১৩ সালের মত রাজনৈতিক অস্থিরতা আবার ফিরে এলে বাংলাদেশের অর্থনীতি ধসে পড়বে। অচলাবস্থায় বিনিয়োগ, উৎপাদন ও কর্মসংস্থান স্থবির হয়ে পড়বে। জ্বালানী ও উৎপাদন ব্যয় বড়বে। কমে যাবে রপ্তানি আয়। রাজস্ব আয়ের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত না হলে অর্থনীতি প্রচণ্ড চাপে থাকবে। আর প্রত্যাশিত বৈদেশিক সহায়তা পাওয়া না গেলে উন্নয়ন কার্যক্রম গতি হারাবে।

এডিবির প্রতিবেদনে প্রবৃদ্ধি বাড়াতে জিডিপি অনুপাতে বিনিয়োগ বাড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হয়। বিশেষ করে অবকাঠামো খাতের বিনিয়োগে বিশেষ নজর দিতে হবে।

 করার লক্ষ্যে কিছু গুরুত্বপুর্ণ বিষয় তুলে ধরা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, প্রবৃদ্ধি ৭ থেকে ৮ শতাংশ করতে হলে বাংলাদেশকে অবকাঠামো খাত উন্নয়নে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে।

এডিবির প্রতিবেদনে বলা হয়, বর্তমানে বাংলাদেশে বিনিয়োগের হার জিডিপির ২৫ থেকে ২৬ শতাংশের মধ্যে ঘুরপাক খাচ্ছে। কিন্তু জিডিপির (মোট দেশজ উৎপাদন) প্রবৃদ্ধি ৭ শতাংশের উপরে নিতে হলে বিনিয়োগের হার বাড়িয়ে ৩০/৩২ শতাংশ করতে হবে।