দুর্নীতি প্রতিরোধে সরকারি প্রতিষ্ঠানকে মেরুদণ্ড সোজা করে দাঁডানোর আহ্বান

0
82

DUDOKদুর্নীতি প্রতিরোধ করতে হলে সরকারি সব প্রতিষ্ঠানকে মেরুদণ্ড সোজা করে দাঁড়াতে হবে বলে মনে করেন সাবেক শিক্ষা মন্ত্রী ও বিএনিপর স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. ওসমান ফারুক। তার মতে, সরকারকে খুশি করতে গিয়ে সরকারি সব প্রতিষ্ঠান দুর্নীতিকে প্রশয় দেয় আর  সরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো দূর্নীতির বৃত্ত থেকে বের হতে পারে না।

আর দেশকে দূর্নীতি প্রতিরোধেসরকারের কাছে মাথা নত না করে প্রয়োজনে সরকারি কর্মকর্তাদের চাকরি ছেড়ে দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

মঙ্গলবার রাজধানীর সেগুন বাগিচায় দুদকের সম্মেলন কক্ষে দুর্নীতি প্রতিরোধ সপ্তাহ উপলক্ষ্যে আয়োজিত “রাজনৈতিক ঐক্য ও জবাবদিহিতামূলক প্রশাসন দুর্নীতি দমন ও প্রতিরোধের প্রধান নিয়ামক” শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

ড. ওসমান ফারুক বলেন, সরকারি সবগুলো প্রতিষ্ঠানই দলীয় তোশামদে ব্যস্ত। প্রশাসনের সকল স্তরে দলীয় প্রভাবের কারণে মানু্ষের কাছে প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়েছে এসব প্রতিষ্ঠান। দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) সব সময়ই বিরোধী দলের ও ক্ষমতাহীন লোকদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করে। সরকারি যেসব ব্যক্তির বিরুদ্ধে অনুসন্ধান করছে তারা সবাই সরকারের আর্শিবাদের বাহিরে।

তিনি বলেন, দুর্নীতির জন্য সব সময় রাজনীতিবিদ এবং প্রশাসনকে দায়ী করা হয়। তবে আমাদের দেশের প্রাইভেট সেক্টরগুলো রাজনীতিবিদদের চেয়ে বেশি দুর্নীতিবাজ। ব্যবসায়ীরা তাদের দুর্নীতি লুকাতে অনেক সময় রাজনীতিবিদরে ব্যবহার করে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের সমাজে একটা কথা প্র্রচলিত আছে যে, দরিদ্রতার জন্য দুর্নীতির ঘটে।  এটা্ ঠিক নয় দুর্নীতি মূলত হয় মানুষের অধিক সম্পদের লোভ থেকে। আবার অনেক সময় দুর্নীতি হয় দলীয় ও সরকারি প্রভাবের কারণে।