লাখো কণ্ঠে একযোগে ‘আমার সোনার বাংলা’

অর্থসূচক ডেস্ক

0
76
national-anthem
বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্যোগেও অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনা

দেশজুড়ে জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে লাখো কণ্ঠে ধ্বনিত হলো ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’। আজ ২৬ মার্চ ৪৮তম স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে সকাল সকাল প্রতিটি স্কুল-কলেজের উদ্যোগে ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষক-শিক্ষিকারা কণ্ঠ মিলিয়েছেন প্রাণের সুরে। বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্যোগেও অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনা।

pm national anthem
জাতীয় সংগীত গাইছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক সংবাদ সম্মেলন (ছবি- বিটিভি স্ক্রিনশট)

এদিকে বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে আয়োজিত জাতীয় শিশু-কিশোর সমাবেশে ছোটদের সঙ্গে কণ্ঠ মিলিয়ে জাতীয় সঙ্গীত গেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ঘড়ির কাটায় ৮টা পেরিয়ে গেলেও সকালের রোদ তখনও উত্তাপ ছড়াতে শুরু করেনি। এরই মধ্যে জাতীয় সংগীতের ধ্বনি দেশপ্রেমের বাঁশি বাজিয়ে গেছে সকলের প্রাণে।

আজ বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ছিল শিশু-কিশোরদের ঢল। তাদের সঙ্গে ছিলেন অভিভাবক, শিক্ষক, দর্শক। সব মিলিয়ে কানায় কানায় পূর্ণ স্টেডিয়ামের মঞ্চে ওঠেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। মঞ্চের পাশে দাঁড়ানো শিল্পীরা আগেই প্রস্তুত ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী প্রস্তুত হতেই হাজারও কণ্ঠে ধ্বনিত হয় ‘আমার সোনার বাংলা, আমি তোমায় ভালোবাসি’।

জাতীয় সঙ্গীতের পর প্রধানমন্ত্রী সালাম গ্রহণ করেন শিশু-কিশোর সমাবেশের নেতার কাছ থেকে। পরে তিনি পায়রা ও বেলুন উড়িয়ে সমাবেশের উদ্বোধন করেন। সমাবেশের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের পর ৮টা ১৮ মিনিটে মাঠ পরিদর্শন শুরু করেন প্রধানমন্ত্রী। ৮টা ২১ মিনিটে মাঠ পরিদর্শন শেষে মঞ্চে ফেরেন তিনি। এ সময় স্টেডিয়ামের ডিসপ্লেতে দেশের উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরা হয়।

national-anthem
বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের উদ্যোগেও অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনা

এর আগে শিক্ষামন্ত্রণালয়ের এক জরুরি চিঠিতে বলা হয়, ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবস ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে দেশব্যাপী একইসঙ্গে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার জন্য সকাল ৮টায় সময় নির্ধারণ করা হয়েছে। এসময় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত থেকে পতাকা উত্তোলন করবেন এবং জাতীয় সঙ্গীত গাইবেন। একই সময় দেশব্যাপী জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার জন্য অনুরোধ জানানো হয় ওই চিঠিতে।

অর্থসূচক/ জেজে