কুবিতে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগে মানববন্ধন

0
59
cou

couরোববার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ তুলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সামনে মানববন্ধন করেছে বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থীরা।

এর আগে ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগে অনিয়মের অভিযোগ’ শিরোনামে গত ২৪ মার্চ কুমিল্লার স্থানীয় সাপ্তাহিক ‘কুমিল্লার কথা’ পত্রিকায়  একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত এই সংবাদের ভিত্তিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের  শিক্ষক হিসেবে অযোগ্য প্রার্থীকে নিয়োগের প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা আজ মানববন্ধন করেছে।

জানা যায়, শিক্ষক নিয়োগে বিভাগীয় প্রধানকে নিয়োগ বোর্ডের সদস্য না করে বিভাগের অন্য একজন শিক্ষককে বোর্ডের সদস্য করে এই নিয়োগ কার্যকর করা হয়। যোগ্য ও মেধাবী প্রার্থী সাক্ষাৎকারে অংশগ্রহণের পরও জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করা একজন প্রার্থীকে প্রভাষক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

মানববন্ধনে শিক্ষার্থীরা বলেন, অবৈধ এই নিয়োগ বাতিল করে দ্রুত পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করা যোগ্য ও মেধাবী প্রার্থীকে নিয়োগ দিতে হবে অন্যথায় কঠোর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

মানববন্ধনে বিভাগের শিক্ষার্থীরা আরও বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের মত সুনামধন্য এই বিশ্ববিদ্যালয়ে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করা কোনো শিক্ষার্থীকে শিক্ষক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া চলবে না। আর যতো দ্রুত সম্ভব এই অবৈধ নিয়োগ বোর্ড বাতিল করতে হবে।

এ নিয়োগ প্রসঙ্গে বাংলা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান শামসুজ্জামান মিলকী বলেন, অধ্যবধি আমি বাংলা বিভাগের দায়িত্ব পালন করে আসছি। কিন্তু নিয়োগ বোর্ড সম্পর্কে আমি কোন চিঠি পাইনি। তবে, প্রত্রিকা সূত্রে নিয়োগ বোর্ড সম্পর্কে জেনেছি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ-সম্পাদক মেহেদী হাসান বলেন, আমরা এ বিষয়টি উল্লেখ করে চলতি মাসের ২৫ তারিখে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে লিখিতভাবে জানিয়েছি। আমরাও চাই এক জন যোগ্য এবং মেধাবী প্রার্থী নিয়োগ দেওয়া হোক। ঐ নিয়োগ বোর্ড সংশ্লিষ্ট বিভাগের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে নিয়োগ বোর্ডের সদস্য না করে বিভাগের অন্য একজন শিক্ষককে সদস্য করেছে তাই বোর্ডেও বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে।