রাজশাহী পবার অধিকাংশ কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ

0
61
Upazila_Election

Upazila_Electionশেষ ও ৫ম দফায় আগামিকাল সোমবার রাজশাহীর পবা উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এখানকার ৭৬টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৪০টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ  হিসেবে চিহ্নিত করে নেওয়া হচ্ছে বাড়তি নিরাপত্তা।

এদিকে নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। রোববার সকল কেন্দ্রে ব্যালট বাক্স, ব্যালেট পেপারসহ সকল প্রকার নির্বাচনী সরঞ্জামাদী প্রেরণ করা হয়েছে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে।

পবা নির্বাচন কর্মকর্তা আসাদুজ্জামান জানান, নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এদিকে পবা উপজেলার মোট ৭৬ টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৪০ টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এর মধ্যে পবা থানা এলাকার ৪৩ টি কেন্দ্রর মধ্যে ১৩ টি এবং আরএমপি এলাকার ৩৩ টি কেন্দ্রের মধ্যে ২৭ টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এই ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রগুলোতে বাড়তি নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়াও সকল ভোট কেন্দ্রে নিরাপত্তার লক্ষ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণ আনসার, পুলিশ, র‍্যাব, বিজিবি ও সেনাবাহিনীর সদস্যরা নিয়োজিত থাকবে।

এ উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ১৪ দল মনোনীত একক প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মুনসুর রহমান (মোটর সাইকেল), বর্তমান চেয়ারম্যান ও জামায়াত সমর্থিত প্রার্থী আলহাজ্ব মোকবুল হুসাইন (আনারস), বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী শাহজাহান আলি (দোয়াত কলম) এবং কুতুব উদ্দিন বাদশা (কাপ-পিরিচ) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়াও বিএনপির অপর ২ প্রার্থী আব্দুস সালাম (ঘোড়া) ও বজলে রেজবি আল হাসান মঞ্জিল (হেলিকপ্টার) প্রতীক নিয়ে নির্বাচনী মাঠে প্রচারণা চালালেও শেষ পর্যায়ে তারা বিএনপি প্রার্থীকে সমর্থন জানিয়েছেন।

পুরুষ ভাইস-চেয়ারম্যান পদে মোট ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে ১৪ দলের ১ জন এবং বিএনপির ৬ জন প্রার্থী রয়েছেন। এরা হলেন, ১৪ দল মনোনিত একক প্রার্থী ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা অধ্যাপক এসএম আশরাফুল হক তোতা (মাইক), নওহাটা পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মামুনুর সরকার জেড (চশমা), উপজেলা সেচ্ছা-সেবক দলের সভাপতি মাজহারুল ইসলাম জুয়েল (টিউবয়েল), বিএনপি নেতা আলী হোসেন (তালা), আব্দুস সাত্তার (টিয়া পাখি), রকিবুল হাসান (বৈদ্যুতিক বাল্ব) এবং আলহাজ্ব  বকুল আহম্মেদ (উড়ো-জাহাজ) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান পদে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এরা হলেন ১৪ দল সমর্থীত আওয়ামী লীগ নেত্রী মমতাজ বেগম (কলস), বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান বেগম সুফিয়া হাসান (হাঁস), বিএনপি থেকে রহিমা বেগম রেখা (সেলাই মেশিন), আলেফ লাম মীম ইয়াসমিন (প্রজাপতি), তার্জেমা বেগম (বৈদ্যুতিক পাখা), জামায়াত থেকে খায়রুন্নেসা (ফুটবল) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী নুসরাত জাহান সরকার বেনজির (পদ্মফুল) প্রতীক নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, এ উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও দুটি পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ২ লাখ ৪ হাজার ১৯৮। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ১ লাখ ১ হাজার ৯৬৮ জন ও নারী ভোটার ১ লাখ ২ হাজার ২৩০ জন। মোট ভোট কেন্দ্র ৭৬ টি। ভোট গ্রহণ হবে আগামিকাল সোমবার।

এমআই/সাকি