চট্টগ্রামে পোশাক পল্লী স্থাপনে নীতিগত সিদ্ধান্ত

0
65
garments

garmentsচট্টগ্রামে গার্মেন্টস শিল্পকে এগিয়ে নিতে পোশাকপল্লী স্থাপন করা হবে। আর এই জন্য সরকারের পক্ষ থেকে ইতিবাচক সাড়া পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ তৈরি পোশাক প্রস্তুত ও রপ্তানিকারক সমিতি (বিজিএমইএ)।এটি প্রতিষ্ঠিত হলে চট্টগ্রামে তৈরি পোশাক শিল্পের সম্প্রসারণ ও আধুনিকায়ন হবে বলে মনে করছে সংগঠনটি। তবে কবে নাগাদ কাজ শুরু হবে কিংবা কারা অর্থায়ন করবে সে বিষয় কোনো কিছু জানা যায়নি।

চট্টগামে পোশাক পল্লী স্থাপনের জন্য চলতি মাসের ২৪ তারিখে ক্যাবিনেট সভায় প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন বলে জানা গেছে।

পোশাক পল্লী স্থাপনের ওপর বিস্তারিত আলোচনা ও করণীয় বিষয় ঠিক করতে শনিবার বিজিএমইএ’র আঞ্চলিক কার্যালয়ে‌ ‘পোশাক পল্লী বিষয়ক স্থায়ী কমিটি’র সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কালুরঘাটে ১২ একর জমির ওপর প্রস্তাবিত পোশাক পল্লী স্থাপনের সুপারিশ গৃহীত হয়।

এছাড়া দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পণার আওতায় আরও সম্ভাব্য পোশাক পল্লী স্থাপনের বিষয় শুপারিশ করা হয়। যা জরীপরে মাধ্যমে সরকারের নিকট আবেদন করা যেতে পারে।

চট্টগ্রামে পোশাক পল্লী বিষয়ে জানতে চাইলে সংগঠনটির দ্বিতীয় সহ-সভাপতি এসএম মান্নান কচি অর্থসূচককে জানান, এটা কেবল মন্ত্রণালয়ে উপস্থাপিত হয়েছে। তবে এই বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা এখনও হয়নি। সরকার যেহেতু বিষয়টা আলোচনায় এনেছে। তবে সরকারই সিদ্ধান্ত নেবেন কখন, কিভাবে এই পল্লী স্থাপন করা হবে।

তিনি বলেন, ‌‌’আমি জানতে পেরেছি ভূমি প্রতিমন্ত্রীর এলাকায় এই পোশাক পল্লী স্থাপন করা হবে। তবে কারা এখানে অর্থায়ন করবে তা এখন শুধু সরকারই বলতে পারবে’।পোশাক পল্লী স্থাপনের জন্য সরকারের সঙ্গে বিস্তারিত আলোচনার পরে সব সিদ্ধান্ত হবে বলে জানান তিনি।

এদিকে গত ২১ মার্চ চট্টগ্রামে অনুষ্ঠতি হওয়া ৩দিন ব্যাপী ১২ তম ’চিটাগাং অ্যাপারেলস ফেব্রিক্স অ্যান্ড এক্সেসরিজ এক্সপোজিশন (কাফেক্সপো)-২০১৪’র উদ্বোধন করেছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে তোফায়েল আহমেদ গার্মেন্টস শিল্প স্থাপনে শিগগির পদক্ষেপ গ্রহণের অঙ্গীকার ব্যক্ত করেছিলেন। সেখানে তিনি বর্তমান প্রেক্ষাপটে এ’শিল্পকে আরো প্রতিযোগিতামূলক করতে পোশাক পল্লী স্থাপনের বিকল্প নাই বলে উল্লেখ করেন।

একই অনুষ্ঠানে ভূমি প্রতিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান জাবেদ তার মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে পোশাক পল্লী স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় ভূমি বরাদ্দে সব রকম সহযোগিতার কথাও বলেন। আর ২৪ মার্চের ক্যাবিনেট সভায় এটা স্থাপনের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা মিললো।

বিজিএমইএ’র আঞ্চলিক কার্যালয়ের সভায় সভাপতিত্ব করেন পোশাকপল্লী বিষয়ক স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান ও সংগঠনটির সাবেক প্রথম সহ-সভাপতি এস.এম. নুরুল হক।এ’সময় আবদুল ওয়াহাব, সাব্বির মোস্তফা, অঞ্জন শেখর দাশ, এমডিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী-সহ কমিটির সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।