পিটিয়ে-গুলি করে হত্যা করবো: ছাত্রলীগ নেতা

0
69
RU
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়

রাবিরাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফাইন্যান্স এন্ড ব্যাংকিং বিভাগের এমবিএ’র শরিফুল ইসলাম বাবু নামের এক শিক্ষার্থীকে পিটিয়েছে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় ওই শিক্ষার্থীর মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে হত্যার হুমকিও দেয় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠিনক সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া।

শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টা দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ মখদুম হলের এ ঘটনা ঘটে।

কিবরিয়া ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ আল তুহিনের ‘অস্ত্রবাজ ক্যাডার’ বলে ক্যাম্পাসে পরিচিত।

হলের একাধিক শিক্ষার্থী জানায়, শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উর্দু বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী গোলাম কিবরিয়া ১০-১২ জন স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতাকর্মী নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শাহ মখদুম হলের ২০৩ নম্বর কক্ষে যান।

এ সময় নিজ কক্ষে বসে পড়াশুনা করছিলেন আবাসিক শিক্ষার্থী শরিফুল ইসলাম বাবু। কিবরিয়া নিজেকে ছাত্রলীগের নেতা পরিচয় দিয়ে ওই শিক্ষার্থীকে বলেন, তুই নাকি মেয়েদের ডিস্টার্ব করিস? শালা তোর কতো বড় সাহস তুই আমার পরিচিত মেয়ের সাথে কথা বলিস। এসব কথা বলতে বলতেই ককেকজন ছাত্রলীগ নেতা বাবুকে কিল-ঘুষি মারতে থাকে।

এ সময় বাবু নিজেকে নির্দোষ দাবি করলে হঠাৎ করে জামার ভিতর থেকে পিস্তুল বের করে তার মাথায় ঠেকিয়ে হুমকি দেন কিবরিয়া। পরে হল প্রাধ্যক্ষ এসে ওই শিক্ষার্থীকে ছাত্রলীগের হাত থেকে মুক্ত করে।

জানতে চাইলে শরিফুল ইসলাম বাবু বলেন, আমি একটি মেয়ের সাথে রাস্তায় একদিন কথা বলেছিলাম। এতে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা কক্ষে এসে আজ কোনো কারণ ছাড়াই আমার মুখে ও মাথায় কিল-ঘুশি মারতে থাকে। এ সময় আমার ঠোঁট ফেটে রক্ত বের হতে থাকে। ‘আমি কিছু করিনি’ একথা বললে ছাত্রলীগের এক নেতা আমার মাথায় পিস্তুল ঠেকিয়ে হুমকি দেয়।

এ বিষয়ে কিবিয়ার মুঠোফোনে বারবার যোগাযোগ করা হলেও তিনি ফোন ধরেননি।

বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তৌহিদ আল তুহিন বলেন, আমি প্রথমে বিষয়টি শুনিনি। পরে জানার পর ওই শিক্ষার্থীর সাথে কিবরিয়ার মীমাংসা করে দিয়েছি।

যোগাযোগ করা হলে শাহ মখদুম হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ইমতিয়াজ আহমেদ বলেন, তেমন কিছুই হয়নি। সাংবাদিকদের বলার মতো কিছু নাই বলে ফোন রেখে দেন।

উল্লেখ্য, এর আগে গত শুক্রবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের মাদার বখশ হলে এক শিক্ষার্থীকে ব্যাপক মারধর করে তুহিন গ্রুপের নেতাকর্মীরা। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীর মারে ওই শিক্ষার্থীর দুই পা ভেঙ্গে যায়।

এমআই/সাকি