‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ নিয়ে দুর্নীতি হয়েছে: আসিফ নজরুল

0
174
Asif Nazrul

Asif Nazrul‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ নিয়ে  দুর্নীতি করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. আসিফ নজরুল।

শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর তোপখানা রোডের শিশু কল্যাণ ভবন পরিষদে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষ্যে নাগরিক ঐক্য এই আলোচনা সভার আয়োজন করে।

তিনি বলেন, জাতীয় সংগীত আমাদের জন্য একটা গর্বের ও আবেগের বিষয় কিন্তু সরকার এটা নিয়ে দুর্নীতি করেছে। আর ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের পর সরকারের যে ব্যর্থতা ও অন্তঃসারশূন্যতা ফুটে উঠেছে তা ঢাকতেই এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন,সরকারের ক্ষমতায় থাকার লেজুরবৃত্তি নিয়ে জনগণের মনে যে নিরন্তর প্রশ্ন দেখা দিয়েছে তার জন্যই ‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

আসিফ নজরুল বলেন, আমরা স্বাধীন আছি কিনা তা ভেবে দেখতে হবে। যদি স্বাধীন থাকি তবে আমাদের নির্বাচন কিভাবে অন্যদেশের পররাষ্ট্র সচিব বাতলে দিয়ে যান।

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, যারা গুম-খুন করে তারা ‘লাখো কণ্ঠে সোনার বাংলা’ জাতীয় সংগীতের আয়োজন করে কেন।

দুইটি দলই দেশকে নিয়ে বাণিজ্য করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এখন ভারতের বিরুদ্ধে কথা বলা যায় না। আবার বিএনপি ক্ষমতায় আসলে ভারত নিয়ে সমালোচনা করা যাবে কিন্তু পাকিস্তান নিয়ে করা যাবে না। এভাবেই দল দুইটির রাজনীতি চলছে।

সাপ্তাহিক পত্রিকার সম্পাদক গোলাম মর্তুজা বলেন, দেশের স্বাধীনতা দিবসকে বাণিজ্যিক জায়গায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। আর পণ্য বানানো হয়েছে স্বাধীনতা দিবসকে।

তিনি দাবি করেন, ‘লাখো কন্ঠে সোনার বাংলা’ গাওয়ার জন্য মোট বাজেট ছিল ৫০ কোটি টাকা। যার কাজ সংস্কৃতি বিষয়কমন্ত্রী আসাদুজ্জান নূর তার নিজ প্রতিষ্ঠানকে পাইয়ে দিয়েছেন। স্বাধীনতাকে পুঁজি করে এর চেয়ে স্থুল রুচির বাণিজ্য আর হতে পারে না।

‘লাখো কন্ঠে সোনার বাংলা’ আয়োজনের সঙ্গে সাধারণ মানুষের কোনো স্বত:স্ফূর্ততা নেই বলেও দাবি করেন গোলাম মর্তুজা।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার সভাপতিত্বে এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, লেখক ও গবেষক সৈয়দ আবুল মুকসুদ, গণফোরামের সাধারণ-সম্পাদক মোস্তফা মহসীন মন্টু, প্রেসিডিয়াম সদস্য সুব্রত রায় চৌধুরী, স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন প্রমুখ।

জেইউ/এএস