চীনের ল্যাবে জন্ম নিল ক্লোন বানর

অর্থসূচক ডেস্ক

0
182
ঝোং ঝোং এবং হুয়া হুয়ার দুষ্টমি

ডলির কথা মনে আছে? গেল শতকের শেষের দিকে সারা বিশ্বেই সাড়ে ফেলে দেওয়া সেই ভেড়া সাবকটির কথা? ১৯৯৬ সালে প্রথমবারের মতো স্বাভাবিক যৌন প্রজননের পদ্ধতির বাইরে স্তান্যপায়ী প্রাণীর দেহ জন্ম নিয়েছিল। আর সেই প্রানীটি ছিল ডলি।

প্রথম ক্লোনড প্রাণী ডলি

একটি ভেড়ার শরীরের কোষ থেকে ক্লোন করে জন্ম দেওয়া হয়েছিল মায়ের মতো একই রকমরে দেখতে ডলিকে। সে সময় ক্লোন করা এ ভেড়া তোলপাড় সৃষ্টি করেছিল বিজ্ঞান গবেষণায়। তবে ২০০৩ সালে ফুসফুসজনিত রোগে মারা যায় ডলি।

চীনের বিজ্ঞানীরা এবার সেই ডলির মতোই ক্লোনিং এর মাধ্যমে দুইটি বানরের জন্ম দিয়েছেন। চীনের একটি গবেষণাগারে কয়েক সপ্তাহ আগে লম্বা লেজ বিশিষ্ট মাঝারি ধরনের দুই বানর ঝোং ঝোং এবং হুয়া হুয়ার জন্ম হয়েছে।

ঝোং ঝোং এবং হুয়া হুয়ার দুষ্টমি

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, বানরের এ ক্লোনিং প্রক্রিয়ার মাধ্যমে মানুষের অনেক রোগব্যাধি নিয়ে গবেষণা করা সম্ভব হবে।

চাইনিজ একাডেমি অব সায়েন্স ইনস্টিটিউট অব নিউরোসায়েন্সের গবেষক কুয়াং সান বলেন, বানরের ক্লোন করার এ সাফল্য মানুষের অনেক অসুখ যেমন ক্যান্সার, দেহের ভিতরে বাইরের নানা ডিসঅর্ডার নিয়ে গবেষণায় সহায়ক হবে।

স্বাভাবিক বানর চানার মতোই দিন কাটছে ওদের

তবে সমালোচকরা বলছেন, নতুন করে বানরের এই ক্লোনিং করা মানুষের ক্লোনিং এর ধারনাকে আবার উসকে দেবে। যা হবে এক অনৈতিক পদক্ষেপ। তারা বলছেন, মানুষের ক্ষেত্রে এই ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হলে তা আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত হবে।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, ঝোং ঝোং আট সপ্তাহ আগে জন্ম নেয়। আর হুয়া হুয়া জন্ম নেয় ছয় সপ্তাহ আগে।

গবেষকরা জানিয়েছেন, বানর দুটি বোতলজাত খাবার খাচ্ছে এবং স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় বেড়ে ওঠছে। গবেষকদের দাবি তারা আগামী কয়েক মাসের মাধ্যমে এরকম আরও প্রাণীর ক্লোনিং করতে পারবেন।

টি