সিএসইতে কাল থেকে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজের লেনদেন শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
61
Alif Industries
আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ

আগামীকাল বৃহস্পতিবার থেকে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেন হবে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মতোই জেড ক্যাটাগরিতে লেনদেন হবে প্রতিষ্ঠানটির।

সিএসই সূত্রে এই তথ্য জানা গেছে।

Alif Industries
আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ

এর আগে, পুঁজিবাজারে দীর্ঘদিন ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেটে লেনদেনের পর গত বছরের ২৮ ডিসেম্বর থেকে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই)মূল মার্কেটে লেনদেন শুরু করে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ।

লেনদেনের ক্ষেত্রে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের টেডিং কোড হবে ‘AIL’ এবং কোম্পানির কোড হবে ১২০১২। আর ওটিসি থেকে উঠে আসার কারণে জেড ক্যাটাগরি থেকে লেনদেন শুরু করবে কোম্পানিটি।

৩০ জুন, ২০১৭ সমাপ্ত হিসাব বছরে শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ৩৫ শতাংশ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালনা পর্ষদ। এর মধ্যে ২৫ শতাংশ বোনাস এবং ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৪ টাকা ৩৭ পয়সা। আর শেয়ার প্রতি প্রকৃত সম্পদমূল্য (এনএভি) ২৪ টাকা ১৪ পয়সা।

১৯৯৫ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া কোম্পানিটির ৩ কোটি ৭৭ হাজার ৭০০ শেয়ারের মধ্যে বর্তমান পরিচালকদের কাছে রয়েছে ৬৩.৬২ শতাংশ শেয়ার। প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ১৫.৯৪ শতাংশ শেয়ার। আর সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে রয়েছে ২০.৪৪ শতাংশ শেয়ার।

২০০৯ সালে অক্টোবর মাসে আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ ওটিসি মার্কেটে চলে যায়। অবশ্য ওই সময়ে প্রতিষ্ঠানটির নাম ছিল সজিব নিটওয়্যার লিমিটেড। ওই বছরে জেড ক্যাটাগরির ৫১টি কোম্পানি নিয়ে চালু হয় ওটিসি মার্কেট। যেই তালিকায় ছিল প্রতিষ্ঠানটি।

২০১০ সালে আলিফ গ্রুপ প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোক্তা পরিচালকদের শেয়ার কিনে এর মালিকানা নিয়ে নেন। এরপর নতুন নাম দেন আলিফ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। নতুন মালিকানায় কোম্পানিটি ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করে। কোম্পানির পরিচালনা পর্ষদ শেয়ারহোল্ডারদের জন্য ২০১৪ সালে ১০% নগদ, ২০১৫ সালে ১২% বোনাস, ২০১৬ সালে ৩১% বোনাস এবং ২০১৭ সালে ১০% নগদ এবং ২৫% বোনাস লভ্যাংশ ঘোষণা করে।

এই ধারাবাহিকতায় কোম্পানিটি মূল মার্কেটে লেনদেন করার জন্য প্রয়োজনীয় সব শর্ত পূরণ করে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনুমতি পায়।

অর্থসূচক/মাহমুদ/এসএম