চলছে ট্রাম্প- ফেডারেল দোষারোপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

0
65
প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

নতুন বাজেট বাস্তবায়নে ব্যর্থতা ও ফেডারেল সেবা বন্ধ হয়ে যাওয়ায় অচলাবস্থার জন্য একে অপরকে দোষারোপ শুরু হয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প দুষছেন ডেমোক্রেটদের আর তারা দুষছেন ট্রাম্পকে।

প্রেসিডেন্ট ডেমোক্রেটদের দিকে আঙ্গুল তুলেছেন রাজনীতিকে মার্কিন নাগরিকদের স্বার্থের উর্দ্ধে রাখার জন্য। আর দ্বিদলীয় সমঝোতা প্রস্তাব নাকচ করার জন্য ডোনাল্ড ট্রাম্পকে দায়ী করছেন ডেমোক্রেটরা।

সংখ্যাগরিষ্ট রিপাবলিকান প্রধান সিনেটর মিচ ম্যাককোনেল ডেমোক্রেটদের দোষারোপ করছেন ‘দায়িত্বহীন রাজনীতি জন্য’।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এ সম্পর্কে এক টুইট বার্তায় জানিয়েছেন, ডেমোক্রেটরা আমাদের মহান সামরিক বাহিনীর চেয়ে অবৈধ অভিবাসীদের জন্য বেশি চিন্তিত। তারা চাইলে সহজেই একটি সমঝোতা করতে পারে। কিন্তু তা না করে পুরো রাজনৈতিক ব্যবস্থা অচল করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা। সূত্র বিবিসি।

সরকারি বাজেট নিয়ে প্রস্তাবিত বিল ঘিরে মার্কিন সিনেটে মতবিরোধের জেরে স্থবির হয়ে যায় দেশটির সরকারি সব কার্যক্রম। এই বিল সিনেটে অনুমোদনের শেষ সময়সীমা ছিল গত শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত। কিন্তু শেষ মুহূর্তেও এই বিল পাস নিয়ে একমত হতে পারেননি সিনেটররা।

সংখ্যালঘু ডেমোক্রেট প্রধান চাক স্চুমার এই অচলাবস্থার মূলে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে দুষছেন।

বিলের কিছু বিষয় নিয়ে তীব্র মতবিরোধ ছিল রিপাবলিকান ও ডেমোক্রেট সিনেটরদের মধ্যে।

কংগ্রেসে দুই পক্ষের মধ্যে সমঝোতা আলোচনা গতকাল শনিবার পর্যন্ত চালু ছিল।  সিনেট রিপাবলিকান প্রধান মিচ ম্যাককোনেল বলেন, এই অচলাবস্থা নিরসনের জন্য আজ রোববারও এই সেশন চলবে।

আগামী সোমবারের মধ্যে দুই পক্ষ সমাধানে পৌঁছাবে বলে ইতিবাচক মনোভাব পোষণ করছেন হোয়াইট হাউজের বাজেট প্রধান। কিন্তু তা যদি না হয় হাজার হাজার সরকারি কর্মকর্তা কর্মহীন হয়ে পড়বে। সপ্তাহের শুরুতেই বন্ধ হয়ে যাবে সব সরকারি অফিস।

২০১৩ সালে ২০১৩ সালে সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার আমলে সিনেটরদের মতবিরোধে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের তহবিল বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। ১৬ দিন পর্যন্ত ওই অচলাবস্থা ছিল।

অর্থসূচক/এসবিটি