পিসির সব ধরনের ভাইরাস দূর করার উপায়

0
202
computer

computerকম্পিউটার ব্যাবহারকারীর মধ্যে আমরা অনেকেই জানি উইন্ডোজ সেটাপ দিলে শুধু সিস্টেম ড্রাইভ অর্থাৎ যে ড্রাইভে অপারেটিং সিস্টেম ইন্সটল করা আছে সেটি ফরম্যাট হয়। অন্য ড্রাইভগুলো অপরিবর্তিত থাকে। ফলে সিস্টেম ড্রাইভে যদি ভাইরাস থাকে, তা ডিলিট হয়ে যায়, কিন্তু অন্য ড্রাইভের ভাইরাস গুলো আগের মতই পিসিতে সংসার বেঁধে বসে থাকে। তার উপর অনেক ভাইরাস এতই মারাত্বক হয় যে, যার জন্য এন্টিভাইরাসই ইন্সটল করা যায় না।

পিসি ফরম্যাট করা ছাড়া ভাইরাস তাড়ানোর উপায়

সাধারণত যে সকল ভাইরাস আপনার পিসিতে এন্টিভাইরাস ইন্সটল করতে দেয় না বা আপনার এন্টিভাইরাস দিয়েও যায়না তার কারণ, তারা আপনার পিসিতে সক্রিয় আছে বলেই এন্টিভাইরাস ইন্সটল করা থেকে বিরত রাখতে পারে আর আপনার এন্টিভাইরাস এর ক্ষমতাকেও হারাতে পারে। সুতরাং, এমন কিছু করতে হবে যেন, ভাইরাসগুলো সক্রিয় না থাকে।

পিসিতে ভাইরাস তখনই সক্রিয় হয়, যখন আপনি পিসির ড্রাইভগুলো ওপেন করেন। ধরুন, আপনার পিসিতে সিস্টেম ড্রাইভ ছাড়া অন্য ড্রাইভে ভাইরাস আছে। এখন আপনি যদি ওইন্ডোজ সেটাপ দিয়ে আবার আপনার ড্রাইভগুলো ওপেন করেন, তাহলে ভাইরাসগুলো আবার সক্রিয় হবে।

ভাইরাস দূর করার উপায়

১)  প্রথমেই উইন্ডোস সেটাপ দিন।

২)  এখনি মাদারবোর্ডের সিডির সফটওয়্যারগুলো (সাউন্ড, ল্যান, চিপসেট, ভিডিও) ইন্সটল করবেন না।

৩)  ওইন্ডোজ সেটাপের পরে প্রথম যখন কম্পিউটারটি অন করবেন তখন “MY Computer” এ বা এর কোনো ড্রাইভেও যাবেন না। এর ফলে আপনার পিসির ভাইরাস সক্রিয় হবে না।

৪)  এখন এন্টিভাইরাসের সিডি অথবা পেনড্রাইভ থেকে এন্টিভাইরাস সফ্টওয়্যারটি ইন্সটল করুন। পেনড্রাইভ কম্পিউটারে প্রবেশ করানোর সময় shift প্রেস করে রাখুন যেন তা নিজ থেকেই ওপেন না হয়।

৫)  এখন “MY Computer” এর প্রত্যেকটি ড্রাইভ থেকে স্ক্যান করলেই ভাইরাস মুক্ত হয়ে যাবে। তবে সতর্ক থাকতে হবে যে স্ক্যান করার আগে যেন কোন ড্রাইভ ওপেন না হয়। এতে অন্যড্রাইভের ভাইরাস সক্রিয় হয়ে যেতে পারে।

এই নিয়মে আপনার কম্পিউটারের অনেক ভাইরাস চলে যাবে। আর আপনার উইন্ডোস এর সিডি যদি Auto-Mother Board Software গুলো ইন্সটল করে তবে আপনাকে এমন এক সিডি নিতে হবে যেটা তা করেনা। একবার কাজটা করে ফেলে আপনি আবার আপনার পছন্দের ভার্সন এ চলে যেতে পারেন। (সূত্র ইন্টারনেট)

সাকি/