জিয়া স্বাধীনতার ঘোষক নয়, শিশুদের বললেন শাজাহান খান

0
63
shajahan

shajahanজিয়াউর রহমান স্বাধীনতার ঘোষক নয়, তিনি স্বাধীনতা ঘোষনা পত্রের পাঠক। তাহলে তিনি কিভাবে স্বাধীনতার ঘোষক হলেন? বলে শিশুদের গণ্প বলা ছলে বলেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

বিকেল ৬ টায় বাংলাদেশ শিশু একাডেমী বইমেলা ২০১৪ এর মতিউর মঞ্চে সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের পোষাক  ও পুরস্কার বিতরণী এবং কালরাত্রি স্মরণ অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বঙ্গবন্ধুর জীবনী উল্লেখ করে শিশুদের বলেন, একদিন ফরিদপুর জেলায় এক শিশু জন্মগ্রহণ করেন। তিনি আস্তে আস্তে ছোট থেকে বড় হতে থাকেন। বড় হয়ে দেশে স্বাধীনতা যুদ্ধের ঘোষনা দেন। পরে দেশ স্বাধীন হয়।

তিনি আরও বলেন, তোমরা নিশ্চয়ই জান আজ ২৫ মার্চ এই দিনে ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি সৈন্যরা রাতের আঁধারে আমাদের নিরস্ত্র বাঙালীদের মেরেছিল ঐ পাকিস্তানি হায়নারা। দেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭৫ সালে এই স্বাধীনতার মহানায়ককে স্বপরিবারে হত্যা করা হয়।

তিনি বলেন, দেশে এখন পাকিস্তানের দোসর হোয়ে জামায়াতে ইসলাম ও বিএনপি কাজ করে যাচ্ছে। তোমরা শিশুরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুকে মনে প্রাণে শ্রদ্ধা ও ভালবাসবে, যেভাবে বঙ্গবন্ধু দেশকে ভালবেসেছিল।

অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের এক্সিকিউটিভ ফোরামের সাধারণ সম্পাদক, জমির হোসেন গাজী বলেন, অগ্রণী ব্যাংক শিশুদের মেধা বিকাশের জন্য সব ধরনের সহযোগিতা করে আসছে। যেভাবে এই বইমেলার পৃষ্ঠপোষকতা করে আসছে। তিনি বলেন, আগামিতে আমরা শিশুদের জন্য আরো ভাল কিছু করতে চাই।

তিনি মায়েদের উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা আপনাদের শিশুদের বঙ্গবন্ধুর জীবনী পড়াবেন। তাহলে তারা সবাই তাঁর সর্ম্পকে জানতে পারবে। তবেই বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠিত হবে।

কবি নুরুল হুদা বলেন, বাংরাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবন্ধুর অবদান জাতি কোন দিন অস্বীকার করতে পারবে না, বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতার স্থপতি হিসেবে আজীবন আমাদের বুকে থাকবে।

তিনি বলেন, আমাদের প্রত্যেককে বঙ্গবন্ধু হতে হবে, আমাদের সবাইকে যার যার অবস্থান থেকে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে সত্য ন্যায়ের পক্ষে।

অনুষ্ঠান শেষে সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের পোষাক ও পুরস্কার বিতরণ করা হয়।  এবং সবশেষে শিশু পরিবেশনায় এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, কবি নরুল  হুদা, বাংলাদেশ শিশু একাডেমীর চেয়ারম্যান শেখ আবদুল আহাদ, পরিচালক মো. মোশাররফ হোসেন, বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ত্ব ও সঞ্চালক আবদুন নূর তুষার, মেলার সদস্য সচিব ও লাইব্রেরিয়ান রেজিনা আক্তার, প্রোগ্রাম অফিসার লায়লা আরজুমান বানু প্রমুখ।

অর্থসূচক.কম/এসএস/সাকি