বায়ু দূষণের কারণে ২০১২ সালে বিশ্বে ৭০ লাখ মানুষের মৃত্যু!

0
62
air pollution

air pollutionবায়ু দূষণের কারণে ২০১২ সালে বিশ্বে ৭০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) এক গবেষনায় এ তথ্য বেরিয়ে এসেছে। খবর বিবিসি নিউজের।

গবেষনায় দেখা গেছে, হৃদরোগ, শ্বাসপ্রশ্বাসের সমস্যা ও ক্যানসারের মতো দূরারোগ্য ব্যাধির সাথে বায়ু দূষণের সম্পর্ক রয়েছে। বিশ্বে প্রতি আটজনে একজনের মৃত্যুর সাথে এর সম্পর্ক রয়েছে। বায়ু দূষণের কারণে মানুষ নানা রকমের রোগ-ব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, মানুষের মৃত্যুর জন্য এককভাবে সবচেয়ে বেশি দায়ী বায়ু দূষণ।

গবেষনায় দেখা গেছে, এই দূষণের কারণে গত বছর দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া ও পশ্চিমাঞ্চলীয় প্রশান্ত অঞ্চলে প্রায় ৬০ লাখ মানুষের মৃত্যু ঘটেছে। এর মধ্যে প্রায় ৩০ লাখ ৩০ হাজারের মৃত্যু ঘটেছে আভ্যন্তরীনভাবে বায়ু দূষণের কারণে। আর আন্তর্জাতিকভাবে বায়ু দূষণের কারণে মৃত্যু ঘটেছে ২০ লাখ ৬০ হাজারের। এ অঞ্চলের  প্রধানত স্বল্প আয় ও মধ্যম আয়ের দেশগুলোতে এসব মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার স্বাস্থ্য বিভাগের জনস্বাস্থ্য, পরিবেশগত ও সামাজিক নির্ধারক বিষয়ক পরিচালক ডাক্তার মারিয়া নেইরা বলেন, হৃদরোগ ও ষ্টোকের মতো জটিল রোগে আক্রান্ত হওয়ার জন্য আগে বায়ু দূষণকে যতটা দায়ী ভাবা হত , সেটি তার চেয়ে অনেক বেশি ভয়াবহ।

তিনি আরো বলেন, তাই আমরা যাতে নির্মল বায়ুতে নি:শ্বাস নিতে পারি সেজন্য কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। বায়ু দূষণের মাত্রা কমাতে পারলে লাখ লাখ মানুষের জীবন বাঁচবে বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পরিবার, নারী ও শিশুর স্বাস্থ্য বিষয়ক সহযোগী মহাপরিচালক ডাক্তার ফ্লাভিয়া বুস্ট্রেও বলেন, আমরা নির্মল বাতাসে নি:শ্বাস নিতে পারলে নারী, শিশু ও বৃদ্ধসহ সবার অসংক্রমণ ও ঝুকিপূর্ণ রোগ-ব্যাধি কমিয়ে আনতে পারবো।

আভ্যন্তরীনভাবে বায়ুদূষণের কারণে দরিদ্র নারী-শিশুকে চরম মূল্য দিতে হচ্ছে। মহিলারা রান্নাবান্নার কাজে কয়লা ও কাঠের চুলা ব্যবহার করে থাকে। আর এই দূষিত বাতাসের মধ্যেই তাদেরকে দীর্ঘসময় কাটাতে  এবং নি:শ্বাস নিতে হয়। ফলে তারা নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়ে। তাই সুস্থ্য থাকলে চায়লে বায়ু দূষণ অবশ্যই কমাতে হবে।