‘উৎপাদন পরবর্তী কাজে সফল হয়নি সরকার’

0
80

farmarপণ্য উৎপাদনে সরকার যথেষ্ট সহযোগিতার হাত বাড়ালেও উৎপাদন পরবর্তি ধাপ পণ্যের মূল্য সংযোজন ও প্রক্রিয়াজাতকরন এসব ক্ষেত্রে সরকার সাফল্য দেখাতে পারেনি বলে জানালেন দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কৃষকেরা।

মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সমিতি আয়োজিত কৃষক মত বিনিময় সভায় এসব কথা জানান তারা।

কৃষকেরা বলেন, কেন্দ্রীয় ব্যাংক কৃষকদের ঋণ সুবিধা দিচ্ছে ঠিকই তবে সবাইকে নয়। এক্ষেত্রে ব্যাংকগুলো কৃষকদের মতাদর্শ এবং চিন্তা চেতনা বিবেচনা করে ঋণ দিচ্ছে। রাজনৈতিক বিষয় বিবেচনা করা হচ্ছে। যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। ঋণ দেওয়ার ক্ষেত্রে সকল কৃষককে সমান চোখে দেখা উচিত।

এ সময় কৃষককে মূল্যায়ণের ক্ষেত্রে সরকারকে দলীয় সংকির্ণতার উর্দ্ধে থাকার আহ্বান জানান তারা।

তারা আক্ষেপ প্রকাশ করে বলেন, ব্যাংকগুলো কৃষককদের ঋণ এনজিও’র মাধ্যমে বিতরণ করছে। কৃষকদের গায়ের গন্ধ তাদের ভাল লাগে না। তাই তারা এনজিওদের হাতে এই ঋণ দিচ্ছে।

কৃষিতে ভর্তুকি ২০ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর দাবি জানিয়ে তারা বলেন, ভর্তুকি না বাড়ালে কৃষিতে উন্নয়ন সম্ভব নয়। এ ছাড়া এখনও কৃষকরা ব্যাংক থেকে ঋণ নিতে হলে কর্মকর্তাদের ঘুষ দিতে হয় বলে জানান তারা।

কক্সবাজারের কৃষক রহিম বলেন, প্রতিটি কৃষি অঞ্চলে যদি ৫টি করে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দোকানের ব্যবস্থা করা হয় তাহলে সারা বছর যে কোনো সবজি ১০টাকা ধরে দেশবাসীকে খাওয়াতে পারবে।

অপর এক কৃষক বলেন, সংসদে কেউ কৃষকের কথা বলে না। তাই কৃষকদের উৎপাদন বাড়ানোর জন্য এবং তাদের মান উন্নোয়নে সংসদে ১০ টি আসন সংরক্ষিত রাখতে হবে।

নরসিংদীর কৃষানী সেলিনা জাহান বলেন, দেশের সিনেমা-নাটকে কৃষির গুরুত্ব তুলে ধরা হলে এ বিষয়ে কৃষকরা আরও উজ্জিবিত হবে।

দেশের কৃষি গবেষণা ও কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর এসব প্রতিষ্ঠানের সমালোচনা করে কৃষকরা বলেন, কৃষি ভিত্তিক প্রতিষ্ঠানগুলো নিজস্ব গতিতে চলে। কৃষকের কোনো মতামত নেওয়া হয় না। তাই যে সকল কৃষি জমি বন্যা কিংবা ঝড়ের কারণে ক্ষতিগ্রস্ত হয় সেসব এলাকায় সরকারি উদ্যেগে কৃষি মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তাদের পর্যাবেক্ষণের জন্য পাঠানোর আহ্বান জানানো হয়।

অনুষ্ঠানে কৃষকদের জন্য ফ্রী হাসপতাল, কৃষকদের পশিক্ষণের ব্যবস্থা এবং সহজলভ্য ‍ঋণের ব্যবস্থা করার দাবি জানালেন বাংলাদেশ কৃষক উন্নয়ন সমিতি।

সংগঠনের সভাপতি শিরাজুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভূমি মন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ ডিলু, কৃষি অধিদপ্তরের অতিরিক্ত সচিব আনোয়ার ফারুক, সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সিদ্দিকুর রহমান ময়েস, সহ-সভাপতি মঞ্জুর ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক বারী মণ্ডল, সহ-সম্পাদক আফজাল আহমেদ বাবুল, প্রচার সম্পাদক কেতাব মণ্ডল, কৃষক সাহাব উল্যা প্রমুখ।

জেইউ/এসএস/সাকি