‘দেশকে এগিয়ে নিতে ইতিবাচক ও মানসম্পন্ন খবর প্রকাশে এগিয়ে আসুন’

0
81
DCCI2

DCCI2দেশকে এগিয়ে নিতে নেতিবাচক খবর পরিহার করে ইতিবাচক ও মানসম্পন্ন খবর পরিবেশনে এগিয়ে আসতে গণমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা চেম্বারে অনুষ্ঠিত গোলটেবিলের বক্তারা।
তারা বলেন, নেতিবাচক খবর দেশকে পিছিয়ে দেয়।  এজন্য অনুসন্ধানী প্রতিবেদন ও বিশ্বাসযোগ্য খবর প্রকাশে  সাংবাদিকদের আরও উদ্যোগী হতে হবে।
মঙ্গলবার সকালে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (ডিসিসিআই) মিলনায়তনে ব্যবসা-বাণিজ্য ও অর্থনৈতিক উন্নয়নে গণমাধ্যমের ভূমিকা শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
ঢাকা চেম্বারের সভাপতি মোহাম্মদ শাহজাহান খানের সভাপতিত্বে এই সভা পরিচালিত হয়।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেন, দেশকে এগিয়ে  নেওয়ার প্রশ্নে গণমাধ্যমের ভূমিকা অপরিসীম। গণমাধ্যম সামাজিক, রাজনৈতিক, পরিবেশ, বিনোদন, গবেষণা, আবিষ্কার, আইনের শাসন এবং ভবিষ্যৎ স্বপ্ন দেখাতে ভূমিকা রাখবে।

তিনি আরও বলেন, গণমাধ্যমকে সঠিক তথ্য দিতে হবে। সচেতনতা তৈরি করতে সাহায্য করবে। বাধা বিপত্তি দূর করতে তথ্য প্রদান করবে।

সভায় শাহজাহান খান বলেন, গণমাধ্যম দেশের শিক্ষা, আর্থ-সামাজিক এবং টেকসই উন্নয়নে অত্যন্ত শক্তিশালী ভূমিকা পালন করতে পারে।
এছাড়া গণমাধ্যম বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে সরকার ও ব্যবসায়ীদের আরও দায়িত্বশীল ভূমিকা পালনে সহায়তা করে। এসব বিষয় বিবেচনা করে সংবাদকর্মীদের দক্ষতা বাড়াতে আধুনিক প্রশিক্ষণের কোনো বিকল্প নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বৈঠকে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ডেভেলপমেন্ট স্টাডিজ (বিআইডিএস) এর গবেষক ফেলো আবুল বাশার ও ঢাকা চেম্বারের প্রকাশনা ও গণ যোগাযোগ কমিটির আহ্বায়ক এম এস সিদ্দিকী। এতে দেশের উন্নয়নে মিডিয়ার ভূমিকা বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয়েছে।
প্রবন্ধে বলা হয়েছে, দেশের উন্নয়নে গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। এশিয়ার অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের গণমাধ্যম অনেক এগিয়ে আছে। পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের চেয়ে আমাদের দেশে টেলিভিশনের সংখ্যা জনসংখ্যার আনুপাতিক হারে বেশি।

গণমাধ্যম বিভিন্ন সময়ে দেশের অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তুলে ধরে। যেমন আর্সেনিকের বিষয়টি প্রথম যখন গণমাধ্যমে আসে, তারপর থেকে সবার দৃষ্টিতে বিষয়টি গুরুত্বসহকারে বিবেচিত হয়। এভাবে গণমাধ্যম দেশের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে বলে এ প্রবন্ধে তুলে ধরা হয়েছে।
প্রথম আলোর সম্পাদক মতিউর রহমান বলেন, দেশের উন্নয়নে তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে। এ ক্ষেত্রে গণমাধ্যমের ভূমিকা অনেক।
তিনি আরও বলেন, ক্রেতারা টাকা দিয়ে পত্রিকা কেনে। তাই কেউ মিথ্যা বা বানোয়াট খবর টাকা দিয়ে কিনে পড়ে না। আমরা সঠিক তথ্য প্রকাশের চেষ্টা করি। এ ক্ষেত্রে ভুল হতেই পারে, তবে তা সংশোধনের সুযোগ থাকে।
পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য শামসুল আলম বলেন, আমাদের দেশে নেতিবাচক খবর বেশি প্রকাশিত হয়। এ থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।
তিনি আরও বলেন, সাংবাদিকদের অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশে মনোযোগী হতে হবে।
তবে তিনি পত্রিকার মালিকানা কাঠামো গণমুখী করা, সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ প্রদান, সংবাদমাধ্যমকে বিশ্বাসযোগ্য করে তোলার দিকে নজর দেওয়ার কথা বলেছেন।
প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ও দৈনিক অবজারভারের সম্পাদক ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, গণমাধ্যম এখন একটি শিল্প। এ শিল্পকে এগিয়ে নিতে ভালো উদ্যোক্তা দরকার। কেননা ভালো উদ্যোক্তাই পারে একটি ভালো গণমাধ্যম উপহার দিতে।
তিনি আরও বলেন, ব্যবসায়ার মতো গণমাধ্যমেও দুর্নীতি ঢুকে গেছে।
আলোচনা সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা চেম্বারের সহ-সভাপতি খন্দকার শাহিদুল ইসলাম, পরিচালক মুক্তার হোসাইন চৌধুরী, জিল্লুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক মো. গোলাম রহমান প্রমুখ।
এইচকেবি/এআর