এজেন্ট ব্যাংকিংয়ে দিনে ৫০ হাজার টাকা লেনদেন

0
68
বাংলাদেশ ব্যাংক
বাংলাদেশ ব্যাংক ভবন (ফাইল ছবি)

বাংলাদেশ ব্যাংকএজেন্ট ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে গ্রাহকরা দিনে ৫০ হাজার টাকা করে উত্তোলন ও জমা দিতে পারবেন। এ ক্ষেত্রে প্রতিবারে ২৫ হাজার টাকা করে মোট দুইবার টাকা উত্তোলন ও জমা করা যাবে। তবে অন্তর্মুখী রেমিট্যান্সের (প্রবাসি আয়) ক্ষেত্রে টাকা উত্তোলনের এ সীমা প্রযোজ্য হবে না।

সোমবার বাংলাদেশ ব্যাংকের ব্যাংকিং প্রবিধি ও নীতি বিভাগ থেকে এজেন্ট ব্যাংকিংয়ের কিছু নির্দেশনা দিয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপনটি ওইদিনই দেশের প্রতিটি তফসিলি ব্যাংকের প্রধান নির্বাহীদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনার জন্য সংশ্লিষ্ট ব্যাংকের সাথে প্রত্যেক এজেন্টের একটি চলতি হিসাব রাখতে হবে। উক্ত হিসাবের সর্বোচ্চ স্থিতি হবে ১০ লাখ টাকা।

এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনার অনুমোদনের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে আবেদন করতে হবে। আর এ আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে এজেন্টসমূহের সাথে সম্পাদিত চুক্তিপত্রের নমুনা কপি। এজেন্ট ব্যাংকিং সংক্রান্ত ব্যবসায়িক পরিকল্পনা। ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদ কর্তৃক অনুমোদিত এজেন্ট ব্যাংকিং সংক্রান্ত  নীতিমালা (মডেল, নিয়োগ বিধি, নিয়ন্ত্রণ ও নিরীক্ষণ সংক্রান্ত পদ্ধতি, নির্বাচিত সেবাসমূহ এবং শিডিউল অফ চার্জেস ইত্যাদি)।

প্রজ্ঞাপনে আরও বলা হয়েছে, ব্যাংকগুলোর এজেন্ট ব্যাংকিং কার্যক্রম পরিচালনা সম্পর্কিত অনুমোদন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট বিভাগ প্রদান করবে। আর এর আওতায় ব্যাংক তার নিজস্ব নীতিমালার আলোকে এজেন্ট নিয়োগ করতে পারবে।

ব্যাংক কোম্পানী আইন, ১৯৯১ এর ২৬(গ) ধারার বর্ণিত ‘ব্যাংক-সংশ্লিষ্ট কোন ব্যক্তি’ কে এজেন্ট হিসেবে নিয়োগ দেওয়া যাবে না বলেও প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ করা হয়েছে।

নীতিমালায় বলা হয়েছে, মেট্রোপলিটন বা সিটি কর্পোরেশন বা পৌরসভা এলাকার বাইরে অর্থাৎ পল্লী এলাকায় এজেন্ট ব্যাংকিং পরিচালনা করতে হবে। শরিয়াহ্ ভিত্তিক পরিচালিত ব্যাংক সমূহ কেবলমাত্র এজেন্ট পর্যায়ে ইসলামী ব্যাংকিং সেবা প্রদান করতে পারবে এবং এজেন্ট পর্যায়ে গ্রাহকদের লেনদেনকৃত অর্থ বীমা আচ্ছাদনের আওতায় আনতে হবে।

উল্লেখ্য, দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাসরত জনগোষ্ঠীকে সাশ্রয়ী খরচে সীমিত আকারে আর্থিক সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে ‘এজেন্ট ব্যাংকিং’ চালুর উদ্যোগ নিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

এসএই/