মামলা করে বাদী বাড়ি ছাড়া

0
66
dinajpur

দিনাজপুরদিনাজপুর বীরগঞ্জ উপজেলায় ১ গৃহ বধূকে ধর্ষন ও গর্ভের শিশুকে হত্যা মামলা করায় বাদীকে বাড়ি ছাড়া হতে হয়েছে, আপোষের জন্য চেয়ারম্যান ও পুলিশ চাপ প্রয়োগ করায় সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ করেন বাদী।

উপজেলার শিবরামপুর ইউনিয়নের আরাজী মিলনপুর গ্রামের মৃত তাহের উদ্দিনের স্ত্রী আয়শা সোমবার দিনাজপুর প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তিনি এ সব কথা জানান।

গত ২ বৎসর পূর্বে স্বামী তাহের উদ্দিন চার সন্তান রেখে মারা যায়। অসহায় আয়শাকে মৃত হাবিবুর রহমানের পুত্র আশাবুদ্দিন (৩২) জোরপূর্বক ধর্ষন করে।

ঘটনাটি কাউকে না জানানোর জন্য প্রলভোন দিয়ে ও বাচ্চাদের ক্ষতি করার হুমকি দেয়। এক পর্যায়ে আয়শা গর্ভবতি হওয়ার ঘটনাটি ধর্ষক আশাবুদ্দিনকে জানালে সে তার ভাই নুরদ্দিন, কাফিল উদ্দিন, তাজ উদ্দিন, নাজিম উদ্দিন, ভাবি লাকী, রিনা ও বেবী বেগমের সহায়তায় আয়শাকে বিয়ের আশ্বাস দিয়ে গত ২৩ ফেব্রুয়ারি ঠাকুরগাঁও নিয়ে যায় এবং সেখানে হুমায়ুন মুহুরির মাধ্যমে বিয়ের কথা বলে বিভিন্ন কাগজে স্বাক্ষর নেয়।

পরে তাকে ডাক্তার দেখানোর কথা বলে আয়শা নামের একটি ক্লিনিকে নিয়ে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ডিএনসি’র মাধ্যমে গর্ভের সন্তানকে হত্যা করে।

আয়শা ২৫ ফেব্রুয়ারি চিকিৎসা শেষে বাড়িতে ফিরে জানতে পারে আশাবুদ্দিন বিয়ে করে। বিয়ের ঘটনা জানতে চাইলে ভাইয়েরা আয়শাকে মারধর করে তার সন্তানদের রেখে তাকে বাড়ি হতে তাড়িয়ে দেয় এবং ঐ বাড়িতে পুনরায় গেলে জানে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। আপোষের চেষ্টাকরে নিরুপায় হয়ে গত ২ মার্চ বীরগঞ্জ থানায় ২০০১ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ও হত্যা মামলা দ্বায়ের করেন। মামলা করার পর থেকে পুলিশ ওই বাড়িতে গেলেও আসামি গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়নি এখনও।

তিনি আরও জানান, মামলাটি তুলে না নিলে আসামীরা আমাকে ও আমার বাচ্চাদের ক্ষতিকরার হুমকি দিচ্ছে পাশাপাশি তারা বাচ্চাদের আটক রেখে আমার সঙ্গে দেখাও করতে দিচ্ছে না।

মামলা করায় একই এলাকার ইউপি সদস্য মৃত আবুল হোসেনের পুত্র সৈয়দ মণ্ডল ও মৃত আবুল হাই এর পুত্র কবির আপোসের নামে মামলা তুলে নেওয়ার জন্য হুমকি দিচ্ছেন। অপর দিকে শিবরামপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জনক চন্দ্র অধিকারী আয়শাকে জানায় মামলার তদন্তকারী কর্মকতা বীরগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. আরমান হোসেন মামলাটি আপোষ করিয়ে দেওয়ার জন্য তাকে দায়িত্ব দিয়েছে। বর্তমানে পুলিশ অসামীদের গ্রেপ্তার না করায় বাদি ও তার বাচ্চারা নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছে।

ন্যায় বিচারের সার্থে বাদি আয়শা সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ প্রশাসনের উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের আশুহস্তক্ষেপ কামনা করে আসামীদের গ্রেপ্তার ও তার বাচ্চাদের নিজের কাছে রাখার সহযোগীতা কামনা করেছেন।

আরকে/সাকি