জিডিপির লক্ষ্যমাত্রা আবার কমছে, এবার হচ্ছে ৬ দশমিক ৫ শতাংশ

0
75
muhit
আবুল মাল আবদুল মুহিত

muhit_7500আবারও মোট দেশজ উৎপাদন বা জিডিপির লক্ষ্যমাত্রা কমানো হয়েছে।  চলতি অর্থবছরে জিডিপির প্রবৃদ্ধির লক্ষমাত্রা কমানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবুল মুহিত। তিনি আজ জাতীয় সংসদে জানান, চলতি  ২০১৩-১৪  অর্থবছরে জিডিপির লক্ষ্যমাত্রা ৭ দশমিক ২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৬ দশমিক ৫ শতাংশ হবে।

প্রসঙ্গত এর আগে গত ২০ জানুয়ারি চলতি অর্থবছরের প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ৭ দশমিক ২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৬ দশমিক ৩ শতাংশ  করা হয়েছে বলে ঘোষণা দেন অর্থমন্ত্রী ।

চলতি ২০১৩-১৪ অর্থবছরের বাজেটে দেশের প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭ দশমিক ২ শতাংশ। কিন্তু সেসময় বিভন্ন সংস্থা ও সংগঠনের পক্ষ থেকে ওই লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব নয় বলে বলা হয়। জুলাই মাসে বাজেট ঘোষণার পর বিশ্ব ব্যাংক, এশিয়ান উন্নয়ন ব্যাংকসহ(এডিবি) বেশ কিছু সংস্থা  প্রবৃদ্ধির ঘোষিত হার (৭.২ শতাংশ) অর্জন করা সম্ভব হবে না বলে আশঙ্কা প্রকাশ করে।

সর্বশেষ জানুয়ারি মাসে  বিশ্ব ব্যাংক তার এক প্রতিবেদনে বলে বছর শেষে প্রবৃদ্ধির হার দাঁড়াতে পারে ৫ দশিমক ৭ শতাংশ।

ধারণা করা হচ্ছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) চলতি অর্থবছরে রাজস্ব আহরণের লক্ষ্যমাত্রায় পৌঁছাতে না পারা ও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে অর্থনৈতিক স্থবিরতার কারণেই দফায় দফায় এই লক্ষমাত্রার পরিবর্তন করছেন অর্থমন্ত্রী।

উল্লেখ্য এনবিআর চলতি অর্থবছরের জন্য  ১ লাখ ৩৬ হাজার ৯০ কোটি টাকা রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করে। তবে পরে তা কমিয়ে আবার ১ লাখ ২৫ কোটি টাকা করে এনবিআর।

অন্যদিকে, ইউরোপ ও আমেরিকায় অর্থনৈতিক মন্দার কারণে বাংলাদেশে বৈদেশিক সাহায্য প্রবাহে ভাটা পড়েছে বলে ইআরডির পক্ষ থেকে বৈঠকে জানানো হয়। এছাড়া চলতি অর্থবছরের অক্টোবর পর্যন্ত প্রবাসী আয় গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ১০ শতাংশ কম এসেছে। একই সময়ে জনশক্তি রপ্তানিও কমেছে ৩৯ শতাংশ।

 

এছাড়া  ইউরোপ ও আমেরিকায় অর্থনৈতিক মন্দা এবং দেশের পোশাক খাতে শ্রমিক অসন্তোষ থাকার কারণে খাতটি থেকে রপ্তানি আয় কমেছে।

আর এই সব মিলিয়েই বাজেটে ঘোষিত চলতি অর্থবছরের জিডিপির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনটা  সম্ভব হবে না।