চলুন ঘুরে আসা যাক এলেঙ্গা রিসোর্ট

0
316
Tour_elenga_1

Tour_elenga_1এলেঙ্গা রিসোর্ট ব্যক্তি মালিকানায় যাত্রা শুরু করে ২০০৮ সালে। টাঙ্গাইল জেলার কালিহাতি উপজেলার এলেঙ্গা এলাকায় এই রিসোর্ট প্রতিষ্ঠিত। এই রিসোর্টের পাশ দিয়ে বয়ে গেছে যমুনা নদী।

রাজধানী ঢাকা থেকে গাড়িযোগে মাত্র দুই ঘণ্টা সময় লাগে এই রিসোর্টে পৌঁছাতে। টাঙ্গাইল শহর থেকে সাত কি.মি. উত্তরে এলেঙ্গায় গড়ে ওঠেছে ১৫৬.৬৫ হেক্টর জুড়ে এই রিসোর্ট। রিসোর্টের চারপাশজুড়ে বিভিন্ন গাছের সারি। একটা ছায়াঢাকা গ্রামীণ পরিবেশে অবস্থিত এই রিসোর্ট।

রেস্তোরাঁসহ নানা আধুনিক সুযোগ সুবিধায় ভরা এই রিসোর্ট। পাঁচটি ভিআইপি এসি স্যুট ছাড়াও আছে ১০টি এসি ডিলাক্স স্যুট, ১৬টি নানা এসি কক্ষ, পাঁচটি পিকনিক স্পট, সভাকক্ষ, ছোট যাদুঘর ও প্রশিক্ষণ কক্ষ। খেলাধুলার জন্য রয়েছে টেনিস, টেবিল টেনিস, ব্যাডমিন্টন কোর্ট। বাড়তি সুযোগ হিসেবে আরও রয়েছে ইন্টারনেট ও টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থাও। ছোটদের বিনোদনের জন্য গড়ে তোলা হয়েছে কিডস রুম। আছে ঘোড়ায় চড়ার ব্যবস্থা ও হেলথ ক্লাব। বিভিন্ন ধরনের দেশি খাবারের পাশাপাশি রয়েছে চিনা, ভারতীয় ও কন্টিনেন্টাল খাবার। নৌ ভ্রমণের জন্য রয়েছে ট্রলার, দেশিনৌকা ও স্পিডবোড। কাছেই টাঙ্গাইলের তাঁতিবাজার। ইচ্ছে করলে সেখান থেকে কেনাকাটাও করতে পারেন কোনো পর্যটক। এছাড়া রিসোর্টের নিজস্ব গাড়িতে বেড়ানো যায় করটিয়া জমিদারবাড়ি, মধুপুরের গড় আর ধনবাড়ির জমিদারবাড়ি।

অভ্যন্তরীণ সুবিধা ও খরচ :

এখানে মোট ৪০টি রুম আছে। ৩২টি রুমে এসি এবং ৮টি রুম নন এসি। রিসোর্টের ভিতরে দুইটি সুইমিংপুল, ১টি জিম হেলথ ক্লাব, ১টি ম্যাসেজ পার্লার, ১টি রেস্টুরেন্ট, ১টি বেকারী, ১টি বার ও ২টি ডিসকো ব্যবস্থা আছে। আউটডোরে ফুটবল, ক্রিকেট, ক্যারাম, ব্যাডমিন্টন, টেবিল টেনিস, মিউজিক্যাল চেয়ার, হাড়িভাঙ্গা খেলার সুবিধাও রয়েছে।

রুমগুলোর সুবিধা এবং খরচ :

যেকোনো সময়ে রুম বুকিং করা যায়। এর জন্য ভাড়ার ৪০ শতাংশ টাকা অগ্রীম জমা দিতে হয়। বুকিং এর ক্ষেত্রে দেশি ও বিদেশি উভয়ের বেলায় একই নিয়ম অনুসরণ করা হয়। বুকিং এর সময় বিদেশিদের জন্য পাসপোর্টের ফটোকপি জমা দিতে হয়।

রুমগুলো এসি, টিভি, ইন্টারকম টেলিকম সুবিধা, ফ্রিজ, লার্জ বাথ অ্যান্ড ট্যব, হট ও কুল পানি, প্রত্যেক বাথরুমে ফুট কটেজ দেওয়া হয়।

Tour_elenga_1এসিসহ ৪ বেডের কটেজের ভাড়া ১২,০০০ টাকা। এসিসহ ৩ বেডের কটেজের ভাড়া ১১,০০০ টাকা। এসিসহ ২ বেডের কটেজের ভাড়া ৯,০০০ টাকা। এসিসহ ডিলাক্স রুমের ( দুই জন) ভাড়া ৩,৬০০ টাকা। এসিসহ ডিলাক্স রুমের ( তিন জন) ভাড়া ৪,২০০ টাকা। এসিসহ  ডিলাক্স রুমের (একজন) ভাড়া ৩,০০০ টাকা।

বুকিং পদ্ধতি :

রুম বুকিং এবং অগ্রীম রিজার্ভেশনে স্বদেশি ও বিদেশিদের ক্ষেত্রে একই নিয়ম। হেড অফিস থেকে রিসোর্টের রুম বুকিং দিতে হয়। শীতকালে অর্থাৎ নভেম্বর থেকে মার্চ মাস পর্যন্ত বেশি ভিড় থাকে। এ সময় বুকিং ও অগ্রীম রিজার্ভেশন দিতে হয় ১৫ দিন আগে।

কর্পোরেট ব্যবস্থা ও খরচ:

পিকনিক, ডিজে পার্টি, গেট টুগেদার, অফিসিয়াল অনুষ্ঠান করার ব্যবস্থা রয়েছে। সর্বনিম্ন ৫০ জন থেকে সর্বোচ্চ ১৫০ জনের যেকোনো ধরণের অনুষ্ঠান আয়োজনের ব্যবস্থা রয়েছে। আয়োজকরা ইচ্ছে করলে নিজেরা বা রিসোর্ট কর্তৃপক্ষকে বললে তারাও ডিজে পার্টির সকল আয়োজন করে থাকে। এখানে লোকসঙ্গীত, ফোক ও জারি গান শোনার ব্যবস্থাও আছে। এছাড়া রয়েছে আলাদা রান্না করার ব্যবস্থা ।

হলরুম ও খরচ :

এখানে ১টি হলরুম রয়েছে। এই হলরুমে ১২০ জন একসাথে বসা যায়। যার একদিনের ভাড়া হচ্ছে ৩০,০০০ টাকা। এখানে ১টি কনফারেন্স রুম রয়েছে। এই কনফারেন্স রুমের ধারণক্ষমতা ৫০ জন। একদিনের ভাড়া ২০,০০০ টাকা। বুকিং এর জন্য ৮০ শতাংশ অগ্রীম প্রদান করতে হয়। শুধুমাত্র শীতকালে খালি থাকা সাপেক্ষে বুকিং নেওয়া হয়। এখানে মিটিং রুম রয়েছে যার ভাড়া ৬,৫০০ টাকা।

বিবিধ :

এই রিসোর্টের নিজস্ব ১০টি গাড়ি রয়েছে। এয়ারপোর্ট থেকে নিজস্ব গাড়িতে অতিথিদের আনা ও নেওয়ার ব্যবস্থা রয়েছে। সরকারি ও নিজস্ব জেনারেটরের ব্যবস্থা আছে এখানে। ফ্লোর ভিত্তিক ফায়ার এক্সিটের ব্যবস্থা রয়েছে। অগ্নি নির্বাপনের যথেষ্ট সরঞ্জাম রয়েছে। সাইট সিইং এর ব্যবস্থাও আছে।

একে/ এএস