আইনি প্রক্রিয়ায় খালেদার বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হয়েছে: দুদক

0
66
Begum Khaleda Zia
খালেদা জিয়া- ফাইল ছবি

Begum Khaleda Ziaসম্পূর্ণ আইনি প্রক্রিয়া মেনেই খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন দুর্নীতি দমন কমিশনের পাবলিক প্রসিকিউটর মোশাররফ হোসেন কাজল।

রোববার রাজধানীর সেগুনবাগিচার দুদক কার্যালয়ে তিনি একথা জানান।

মোশাররফ হোসেন বলেন, ২০১০ সালে ২১ এপ্রিল খালেদো জিয়া বিরুদ্ধে দায়ের করা দুইটি মামলায় প্রথমবার শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এরপর বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে তার আইনজীবিদের আবেদনের প্রেক্ষিতে ৩৩ বার শুনানী পিছিয়ে দেওয়া হয়। এরপরে বাধ্য হয়ে তার বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করে আদালত।

উল্লেখ্য, গত ১৯ মার্চ জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া ও ছেলে তারেক রহমানসহ নয়জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

এরপরে বিএনপির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতেই খালেদা বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের নামে বিদেশ থেকে আসা দুই কোটি ১০ লাখ ৭১ হাজার ৬৭১ টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ২০০৮ সালের ৩ জুলাই রমনা থানায় মামলাটি দায়ের করে দুদক। ২০০৯ সালের ৫ আগস্ট আসামিদের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়া, তারেক রহমান, কাজী সলিমুল হক কামাল ওরফে ইকোনো কামাল ও শরফুদ্দিন আহমেদ, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সাবেক সচিব ড. কামালউদ্দিন সিদ্দিকী ও প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ভাগ্নে মমিনুর রহমান অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি।

এ মামলায় খালেদা জিয়া ছাড়া অন্য আসামিরা হচ্ছেন বিএনপি নেতা হারিছ চৌধুরী ও তার তৎকালীন একান্ত সচিব বর্তমানে বিআইডব্লিউটিএ; নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক জিয়াউল ইসলাম মুন্না এবং ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকার একান্ত সচিব মনিরুল ইসলাম খান।

২০১১ সালের ৮ আগস্ট তেজগাঁও থানায় জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলাটি দায়ের করা হয়। এ মামলায় গত বছর ১৬ জানুয়ারি আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে দুদক। মামলাটিতে তিন কোটি ১৫ লাখ ৪৩ হাজার টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আনা হয়।

এইউনয়ন/এসএম