পরিবেশ নিশ্চিত হলে বিনিয়োগ বাড়াবে জাপান

0
89
japan-bbg
japan-bbg
আতিউর রহমান ও জাপানের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর

বাংলাদেশে যথাযথ পরিবেশ নিশ্চিত হলে আরও বিনিয়োগ বাড়াবে জাপান। জাপানের বর্হিবাণিজ্য সংস্থার (জেটরো) প্রধান সাতোশি মিয়ামোটো শুক্রবার বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ড. আতিউর রহমানের সাথে সাক্ষাৎকালে এমন আশ্বাস দেন।

প্রসঙ্গত, বিশ্বব্যাংক ও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) যোগ দিতে  বর্তমানে জাপানে অবস্থান করছেন আতিউর রহমান।

শুক্রবার গভর্নরের সাথে বৈঠককালে সাতোশি মিয়ামোটো বলেন, জাপান বাংলাদেশে বিনিয়োগ আরও বাড়াতে চায়। এজন্য বাংলাদেশকে বিনিয়োগের যথাযথ পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। সাতোশি মিয়ামোটো এ সময় বিনিয়োগবান্ধব পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য গভর্নরের প্রতি আহ্বান জানান।

বাংলাদেশে শিল্পকারখানার জন্য উপযুক্ত অবকাঠামো নেই উল্লেখ করে মিয়ামোটো বলেন, বিনিয়োগকারীদের আগ্রহী করতে হলে অবকাঠামোগত সুযোগ সুবিধাও বাড়াতে হবে। তবে, কৌশলগত অবস্থান, শ্রমিক প্রাচুর্যতা ও সহজলভ্যতার কারণে বাংলাদেশকে বিশ্বের অন্যতম বৃহত্তর এবং আকর্ষণীয় বিনিয়োগ উপযোগী স্থান হিসেবেও উল্লেখ করেন তিনি।

প্রসঙ্গত, কয়েক মাস আগে জেটরোর কান্ট্রি রিপ্রেজেনটেটিভ কেই কাওয়ানো জানান, জাপান চট্টগ্রামে অটোমোবাইল, ইলেকট্রনিকস ও মেশিনারিজ প্লান্ট স্থাপনে আগ্রহী। তবে সে সময়ও কাওয়ানো অধিকতর জাপানিজ বিনিয়োগ আকর্ষণে অবকাঠামো তথা গ্যাস ও বিদ্যুৎ ব্যবস্থার উন্নয়ন, সংশ্লিষ্ট সরকারি প্রতিষ্ঠানের স্বচ্ছতা ও দক্ষতা বৃদ্ধি এবং বিনিয়োগ নীতিমালা ও প্রক্রিয়া সহজীকরণের ওপর গুরুত্বারোপ করেছিলেন।

এদিকে, জেটরো প্রধানের সাথে সাক্ষাতের আগে গভর্নর জাপান কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান কুরোদার সাথেও সাক্ষাৎ করেন। কুরোদা এ সময় গভর্নরকে আ্যবেনোমিক্স সম্পর্কে অবহিত করেন।

এদিকে, গভর্নর কুরোদাকে জানান, ক্ষুদ্র অর্থনীতিতে বাংলাদেশ এখন বেশ এগিয়ে বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়নে ক্ষুদ্র অর্থনীতি বিশেষ ভূমিকা রাখছে বলেও জানান গভর্নর।

দেশের ক্ষুদ্র অর্থনীতির ইতিবাচক ভুমিকার বিষয়ে বলতে গিয়ে তিনি এ সময় আন্তর্জাতিক রেটিং সংস্থা মুডিস এর মূল্যায়ন তুলে ধরেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের একটি সূত্র জানিয়েছে, আতিউর রহমান আগামি ১৪ অক্টোবর পর্যন্ত টোকিওতে অবস্থান করবেন।  এ সময় বিশ্বব্যাংক ও আইএমএফের সঙ্গে নিয়মিত বৈঠকের পাশাপাশি এর প্রতিনিধিদের সঙ্গেও দ্বি-পাক্ষীয় আলোচনায় অংশ নেবেন। এছাড়া, ইন্টারন্যাশনাল ফিন্যান্স করপোরেশনের প্রতিনিধিদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন তিনি। পাশাপাশি কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নরদের নিয়ে আয়োজিত এক সম্মেলনেও যোগ দেবেন।

আগামি ১৬ অক্টোবর তিনি দেশে ফিরে আসবেন বলেও জানিয়েছে সূত্রটি।

সাকি/এএস