সংখ্যালঘুদের বিচারে সরকার টালবাহানা করছে: মিজানুর রহমান

0
64
Mizanur Rahman

Mizanur Rahmanমানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বলেছেন, দেশে যতগুলো সংখ্যালঘু নির্যাতন হয়েছে সবগুলোর সঙ্গে সরকার দলীয় লোকজন জড়িত। এ সময় সরকার তাদের বিচার না করে নানা টালবাহানা করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

শুক্রবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় স্বোপার্জিত স্বাধীনতা চত্ত্বরে রাজনৈতিক, সাম্প্রদায়িকতা ও ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ পূজা উদযাপন কমিটি এ সম্মেলনের আয়োজন করে। অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন সেক্টর কমান্ডার মেজর জেনারেল সি আর দত্ত বীর উত্তম।

তিনি বলেন, সরকার একদিকে সংখ্যালঘুদের পক্ষে সাফাই গায় অন্যদিকে নিজেদের দলের লোকদের লেলিয়ে দেয়। তিনি সরকারকে এসব টালবাহানা না করে এগুলো বন্ধে আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানান।

মিজানুর রহমান বলেন, নির্বাচন পরবর্তী সময়ে এ পর্যন্ত যতগুলো সংখ্যালঘু নির্যাতন হয়েছে রাষ্ট্র এগুলো প্রতিরোধে সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়েছে। এর দায়ভার রাষ্ট্রকেই নিতে হবে। এটি কোনো স্বাভাবিক হামলা নয় এটি আমাদের স্বার্বভৌমত্বের উপর হামলা। এর সঙ্গে জড়িতদের কোনোভাবেই রেহাই দেওয়া যাবে না।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ৭২ এর সংবিধান ছিল অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মূলমন্ত্র। এটি কার্যকরে আওয়ামী লীগ সরকারের বিকল্প নেই। সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী বিএনপি-জামায়াত বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশে সাম্প্রদায়িকতার বীজ বপন করেছে এবং দেশকে একটি পাকিস্তানি তালেবানী রাষ্ট্রে পরিণত করার জন্য সংখ্যালঘুদের উপর আক্রমণসহ নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে।

আওয়ামী লীগ সরকার শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এ সমস্ত অপকর্মের বিরুদ্ধে কাজ করে যাচ্ছে। এ জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনামন্ত্রী মো. নাসিম বলেন, দেশকে সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিণত করতে নানা ষড়যন্ত্র চলছে। বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করে পেছনের দরজা দিয়ে ক্ষমতায় এসে বিএনপি-জামায়াত পুরো দেশটাকে দু’ভাগে বিভক্ত করে ফেলেছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার এদের প্রতিরোধে কাজ করে যাচ্ছে। আমাদের সকলকে এক্ষেত্রে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

সম্মেলনে শ্রী কানতোশ মজুমদারের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন, মানবধিকার কর্মী খুশি কবির, ঢাবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বিশিষ্ট সাংবাদিক মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল প্রমুখ।

এএইচ/এএস