রূপসায় টাইগারের গর্জন

প্রতিনিধি

0
79

শিল্প ও বন্দর নগরী খুলনার তীর ঘেঁষে চলা রূপসা নদীতে প্রতিবারের ন্যায় নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শনিবার বিকেলে নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের আয়োজনে গ্রামীণফোনের পৃষ্ঠপোষকতায় ও খুলনা জেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় লক্ষাধিক দর্শনার্থীদের উপস্থিতিতে ১২ম নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। গ্রামীণফোন চতুর্থবারের মতো এ আয়োজনে সহায়তা দেয়।

প্রতিযোগিতাটি ইতোমধ্যেই রূপ নিয়েছে এ অঞ্চলের মানুষের আনন্দ উৎসবের অন্যতম মিলন মেলায়। সকালে এই আয়োজনকে ঘিরে নগরীতে আয়োজন করা হয় একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি। পরে দুপুর দুইটায় ১ নং কাস্টম ঘাটে আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে বাইচ প্রতিযোগিতা শুরু হয়ে ৪টা ৪০ মিনিটে শেষ হয়।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন খুলনা-২ আসনের সংসদ সদস্য মিজানুর রহমান মিজান, খুলনা বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, জেলা প্রশাসক আমিন উল আহসান, খুলনা অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মাহবুব হাকিম, বিসিবি পরিচালক শেখ সোহেল, খুলনা সিটি কর্পোরেশন প্রধান নির্বাহী পলাশ কান্তি বালা, খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম কমিটির মহাসচিব শেখ মোশাররফ হোসেনসহ অনেকে।

নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্র থেকে উপস্থিত ছিলেন এর সভাপতি মোল্লা মারুফ রশীদ, সাধারণ সম্পাদক মোঃ মনিরুজ্জামান রহিম, সহ সভাপতি আখতার উদ্দিন পান্নু, প্রধান উপদেষ্টা শেখ আশরাফ-উজ-জামান সহ অন্যান্যরা। গ্রামীণফোন থেকে উপস্থিত ছিলেন প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মাইকেল ফ্যলে, খুলনা সার্কেল হেড মোল্লা নাফিজ ইমতিয়াজ, খুলনা সার্কেল হেড অব মার্কেটিং পার্থ প্রতীম ভট্টাচার্য্য এবং অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে গ্রামীণফোনের মোল্লা নাফিজ ইমতিয়াজ বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নের অংশীদার হিসেবে গ্রামীণফোন সব সময় এ ধরণের অনুষ্ঠানে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়ে আসছে।

নগর সামাজিক ও সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সভাপতি মোল্লা মারুফ রশিদ বলেন, নদী বাঁচলে দেশ বাঁচবে-এই স্লোগান নিয়ে আমরা র্দীঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছি। আসুন নদীকে ভালবাসি, নদীকে ভালো রাখি।

এবারের প্রতিযোগিতায় কয়রা, পাইকগাছা,তেরখাদা, কালিয়া, নড়াইল থেকে ১২টি বড় এবং ১০টি ছোট বাইচ দল অংশগ্রহণ করে। এছাড়াও গোপালগঞ্জ, মাদারিপুর ফরিদপুর এলাকার ৬টি বাচারি নৌকা নিয়ে একটি বিশেষ দল তৈরি করা হয়।

বড় দলের প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে এক লাখ টাকা জিতে নেয় কয়রার সুন্দরবন টাইগার। পুরস্কার হিসেবে প্রথম রানার আপ ৬০ হাজার টাকা পায় তেরখাদা খুলনার ভাই ভাই জলপরী। আর দ্বিতীয় রানার আপ পুরস্কার হিসেবে ৩০ হাজার টাকা পায় গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ার মা শীতলা।

ছোট গ্রুপে প্রথম হয়ে ৫০ হাজার টাকা পুরস্কার পায় কয়রার সোনার তরী। দ্বিতীয় বিজয়ী দল পাইকগাছার রিয়া নৌকা বাইচ দল পায় ৩০ হাজার টাকা। আর তৃতীয় স্থান অর্জনকারী দল সাতক্ষীরার জয় মা কালী -২ পায় ২০ হাজার টাকা।

বিশেষ বাচারি দলের প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করে কোটালিপাড়ার গোপালগঞ্জ মা গঙ্গা-১, ৫০ হাজার টাকা জিতে নেয়। প্রথম রানার আপ হিসেবে ৩০ হাজার টাকা পায় রাজড়, মাদারিপুরের মা-দুর্গা (হারেজ)। আর দ্বিতীয় রানার আপ পুরস্কার হিসেবে ২০ হাজার টাকা পায় কোটালিপাড়ার গোপালগঞ্জ সোনার তরী।

সন্ধ্যায় রূপসা ঘাটে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয় এবং পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সঙ্গীত শিল্পী ঐশী, খুলনার ক্ষুদে গানরাজ শিল্পী রাতুল ও স্থানীয় অন্যান্য শিল্পী অংশ নিয়ে সংগীত পরিবেশন করে।

অর্থসূচক/শিউলী/জেডআর