ফেব্রুয়ারিতেও বেড়েছে আমদানি

0
91

Container_Shipরাজনৈতিক শৈত্য কেটে যাওয়ার ফলে বসন্তের ছোঁয়া লাগতে শুরু করেছে দেশের অর্থনীতিতে। এরই ধারাবাহিকতায় গত ফেব্রুয়ারি মাসেও আমদানির পরিমাণ বেড়েছে ১৩ দশমিক ৬০ শতাংশ। সম্প্রতি বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক প্রকাশিত এক বিবরণীতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিগত বছরের বড় অংশ জুড়ে আমদানি নিম্নমুখী থাকলেও চলতি বছরের শুরুতে ধারা বদলে যায়। বছরের প্রথম মাসে সামগ্রিক আমদানি পরিমাণ বেড়েছিল ১২ শতাংশ। এমনকি ভোগ্য পণ্য ও মূলধনী যন্ত্রপাতিসহ সব কিছুতেই পরিলক্ষিত হয়েছিল উর্ধ্বমুখী ধারা।

বাংলাদেশ ব্যাংক জানিয়েছে, ফেব্রুয়ারিতেও এই ধারা অব্যাহত থাকায় মোট আমদানি পরিমাণ ২৮৫ কোটি মার্কিন ডলারে এসে ঠেকেছে। যা বিগত বছরের সংশ্লিষ্ট মাসের তুলনায় ১৩ দশমিক ৬০ শতাংশ বেশি। ২০১৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে মোট আমদানির পরিমাণ ছিল ২৫০ কোটি মার্কিন ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংক প্রকাশিত বিবরণীতে দেখা যায়, বছরের দ্বিতীয় মাসে চাল, গম, চিনি, দুগ্ধজাতীয় খাবার, ভোজ্য তেল এবং শুষ্ক ফলের আমদানির পরিমাণ উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। এ সময়ে ৪ কোটি ৩৫ লাখ ৩০ হাজার কোটি মার্কিন ডলারের চাল, ৮ কোটি ৪২ লাখ ৮০ হাজার কোটি মার্কিন ডলারের গম, ৮ কোটি ৮৬ লাখ ৫০ হাজার মার্কিন ডলারের চিনি, ১ কোটি ৮৩ লাখ ৩০ হাজার মার্কিন ডলারের দুগ্ধজাতীয় খাবার, ৫ কোটি ২০ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলারের ভোজ্য তেল এবং ৩২ লাখ মার্কিন ডলারের শুষ্ক ফল আমদানি করা হয়েছে। এক বছর আগে সংশ্লিষ্ট খাতগুলোতে পরিমাণ ছিল যথাক্রমে ১৫ লাখ ৭০ হাজার মার্কিন ডলার, ৪ কোটি ২৬ লাখ ১০ হাজার মার্কিন ডলার, ৪ কোটি ৯১ লাখ ৪০ হাজার মার্কিন ডলার, ১ কোটি ৫৭ লাখ ৫০ হাজার, ৩ কোটি ৭৪ লাখ ২০ হাজার মার্কিন ডলার এবং ২৭ লাখ ৬০ হাজার মার্কিন ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংক জানায়, তৈরী পোশাক খাতে কাঁচামাল আমদানির পরিমাণও বেড়েছে। ফেব্রুয়ারি মাসে এই খাতে ৪৮ কোটি ৯০ লাখ ৭০ হাজারের কাঁচামাল আমদানি করা হয়েছে। এছাড়াও জ্বালানি পণ্য এবং মূলধনী যন্ত্রপাতির আমদানি করা হয়েছে ২৭ কোটি ৭১ লাখ ২০ হাজার এবং ১৮ কোটি ২১ লাখ ৯০ হাজার মার্কিন ডলার।

বাংলাদেশ ব্যাংক আরও জানিয়েছে, ফেব্রুয়ারিতে আমদানির বিপরীতে ঋণপত্র খোলার পরিমাণ বৃদ্ধি পেয়েছে ২০ দশমিক ৭২ শতাংশ।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের মতে, রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ফিরে আসায় ব্যবসায়ীরা আমদানির পরিমাণ বাড়িয়ে দিয়েছেন। পাশাপাশি অর্থনৈতিক গতিশীলতা ফিরে আসার পরিপ্রেক্ষিতে এই উন্নতি পরিলক্ষিত হচ্ছে।