কুকুর তাড়াতে সভা!

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
72

বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে কুকুরের উৎপাতে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে রাজধানীর দুটি বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। তাই কুকুর তাড়াতে ব্যবস্থা নিচ্ছে মন্ত্রণালয়। এর জন্য ডাকা হয়েছে উচ্চ পর্যায়ের সভা। সেখানেই কুকুরভীতি দূর করতে করণীয় ঠিক করা হবে।

আজ রোববার মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরে এক নির্দেশনার মাধ্যমে বিষয়টি জানা গেছে।

জানা যায়, রাজধানীর ধানমন্ডি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও কামরুন্নেসা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের ভেতর কুকুরের অবাধ বিচরণ রয়েছে। ফলে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা কুকুরভীতি নিয়ে সময় অতিবাহিত করে। কুকুরের এই উৎপাত থেকে নিস্তার পেতে ব্যবস্থা নিচ্ছে স্বয়ং শিক্ষা মন্ত্রণালয়। তাই মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব চৌধুরি মুফাদ আহমেদের সভাপতিত্বে আগামী ১০ অক্টোবর বিদ্যালয় দুইটিতে সভা অনুষ্ঠিত হবে। সেখানে বিদ্যালয়ের ভেতর থেকে কীভাবে কুকুর নিধন করা যায় সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

কুকুরের উৎপাতের বিষয়টি স্বীকার করেছেন বিদ্যালয় দুটির প্রধান শিক্ষিকা।

ধামনন্ডি সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মাহাফুজা হোসানী বলেন, দীর্ঘদিন ধরে বিদ্যালয়ের ভেতরে কুকুর বিচরণ করছে। নানাভাবে চেষ্টা করেও কুকুরগুলো তাড়ানো সম্ভব হচ্ছে না।কুকুর তাড়াতে সিটি কর্পোরেশনসহ বিভিন্ন সংস্থাকে অভিযোগ করেও কোনো লাভ হয়নি।

তিনি বলেন, স্কুল চলাকালীন সময়ে ছোট বাচ্চাদের সামনে দৌঁড়ে আসে কুকুর। এতে করে শিশু শিক্ষার্থীরা ভয় পায়। বড় মেয়েরাও অনেক সময় কুকুর দেখে ভয়ে দৌঁড় দেয়। এতে করে পুরো স্কুলের মধ্যে কুকুরভীতি সৃষ্টি হয়েছে।

কামরুনন্নেছা সরকারি বালিকবা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা নাসরিন আক্তার বলেন, কুকুরেরউৎপাতে স্কুলের সবাই বেশ আতঙ্কে রয়েছি। স্কুলের মাঠের মধ্যে কুকুর দৌঁড়ে এসে মেয়েদের ভয় দেখায়। অনেক সময় আবার দল বেঁধে কুকুরগুলো মেয়েদের সামনে এসে চিৎকার করে। এতে রে স্কুলের পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে।

তিনি বলেন,  কুকুরের উপদ্রব থেকে বাচঁতে আমরা শিক্ষামন্ত্রণালয়ে লিখিতভাবে অভিযোগ করেছি। এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে আগামী ১০ অক্টোবর স্কুলে সভা ডাকা হয়েছে।

বিষয়টির সত্যতা স্বীকার করে শিক্ষামন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব চৌধুরী মুফাদ আহমেদ বলেন, আমরা অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি আমলে নিয়ে সভা ডাকা হয়েছে। সভায় এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

রাসেল/এসএম