আগামি অর্থবছরেই ফোরজি লাইসেন্স প্রক্রিয়া

0
64

4g_mastদেশে চতুর্থ প্রজন্মের মোবাইল ফোন সেবা (ফোরজি) দিতে আগামি ২০১৪-১৫ অর্থবছরে লাইসেন্স দেওয়ার বিষয় ও অন্যান্য আনুষঙ্গিক কার্যক্রমের প্রক্রিয়া চলছে। দেশের  অর্থনৈতিক উন্নয়নে প্রযুক্তির সর্বাত্মক ব্যবহার নিশ্চিত করতে এমন কর্মসূচির কথা ভাবছে বিটিআরসি। আর সেটা হলে খুব শিগগিরই দেশে ফোরজি সেবা নিশ্চিত করা যাবে।

বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) চেয়ারম্যান সুনীল কান্তি মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস-২০১৪ উপলক্ষ্যে ‘সুখী, সমৃদ্ধ, ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গঠনের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রযুক্তির সার্বজনীন ব্যবহার’ শীর্ষক আলোচনা সভায় এই কথা বলেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর বিসিআইসি মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

সুনীল কান্তি বোস বলেন, দেশে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বেড়েছে। দেশে এখন ১০ কোটি মানুষ মোবাইল ফোন ব্যবহার করছে। স্মার্ট ফোন ব্যবহারের সংখ্যাও বাড়ছে। দেশের অনেক অফিসের দাপ্তরিক কাজকর্মে কাগজের নির্ভরতা কমছে বলেও জানান তিনি। তাই দেশের সময় উপযোগী উন্নয়নে উন্নত তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়াতে আগামি অর্থবছরে ফোরজি লাইসেন্স দেওয়ার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান তিনি।

টেলিকম সেক্টরেক রাজস্ব আয়ের বড় খাত উল্লেখ করে তিনি জানান, বছরে এই খাত থেকে প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হয়। অথচ তার বিপরীতে ব্যয় হয় মাত্র ৫০০ কোটি টাকা। তাই ডিজিটাল দেশ গড়তে আরও মানুষকে ইন্টানেট সুবিধার আওতায় আনার কথা ভাবা হচ্ছে বলে জানান তিনি।

দেশ স্বাধীনতা অর্জন করলেও অর্থনৈতিকভাবে এখনও স্বনির্ভরতা আসেনি উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, একটা সময় উপযোগি উন্নয়নের জন্য ও স্বনির্ভর দেশ গঠনে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানোর বিকল্প নেই।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বিসিআইসির চেয়ারম্যান মুনসুর আলী শিকদার, শিল্প সচিব মইনউদ্দিন আবদুল্লাহ, অতিরিক্ত সচিব মোহাম্মাদ ফরহাদ উদ্দিনসহ প্রমুখ।