বিদেশি বন্ধুদের পরামর্শ নেওয়া যায় কিন্তু নির্দেশ মেনে নেওয়া হবে না: নাসিম

Mohamod Nasim

Nasimবিদেশি বন্ধুদের পরামর্শ ও সহযোগিতা নেওয়া যায় কিন্তু কারো নির্দেশ মেনে নেওয়া হবে না বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের শিখা চিরন্তনে ৭১ এর বীর শহীদদের প্রতি ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

দেশের রাজনৈতিক সংকট নিরসনে জাতিসংঘের সহকারি মহাসচিব অস্কার ফার্নান্দেজ তারানকো’র প্রচেষ্টা সফল হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, বিদেশি বন্ধুরা আমাদের ব্যাপারে আগ্রহী। তারা চায় বাংলাদেশ শান্তি ও স্থিতিশীলতা বজায় থাকুক। আমরা তাদের পরামর্শ ও সহযোগিতা নিতে পারি। তবে কারো নির্দেশ মেনে নেবো না।

তিনি বলেন, জনগণের ইচ্ছানুযায়ী সংবিধান মোতাবেক যথা সময়ে নির্বাচন হবে। আওয়ামী লীগ কারো চাপের মুখে নতি স্বীকার করবে না।

তিনি আরও বলেন, ৫ জানুয়ারীর নির্বাচন বানচালে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে ষড়যন্ত্র হচ্ছে। কোনো ষড়যন্ত্র কাজে আসবে না। সংবিধান অনুযায়ীই নির্বাচন হবে।

শেখ হাসিনা প্রধানমন্ত্রীর পদ ছেড়ে নির্বাচনে যাবেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রশ্ন ওঠে না। শেখ হাসিনা সাংবিধানিকভাবে প্রধানমন্ত্রী ও আমাদের সভাপতি, তাকে বাদ দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। আওয়ামী লীগও মেনে নেবে না।

কাদের মোল্লার রায় কার্যকর পরবর্তী নাশকতা প্রসঙ্গে নাসিম বলেন, তারা অবরোধ ও হরতাল ডেকে আন্ডারগ্রাউন্ড থেকে। আর  আমরা মাঠে রয়েছি রায় কার্যকর হলেও মাঠে থাকবো।

তিনি বলেন, জামায়াত-শিবিরের নৈরাজ্যের সুরাহা হবে নির্বাচনের মধ্য দিয়ে। একাত্তরের ঘাতক ও ৯০-এ স্বৈরাচারের বিজয় হয় নি, জনগণের বিজয় হয়েছে। এখনো জনগণেরই বিজয় হবে।

এ সময় সেখানে আরও উপস্থিত ছিলেন, ওয়ার্কাস পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সাধারণ-সম্পাদক শরীফ নুরুল আম্বিয়া, গণতন্ত্রী পর্টির সাধারণ-সম্পাদক নুরুর রহমান সেলিম, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক-সম্পাদক আহমদ হোসেন প্রমুখ।

 

এর আগে শিখা চিরন্তনের সামনে বিরোধী দলীয় জোটের অবরোধ ও জামায়াতের হরতালের প্রতিবাদে মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট। এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের নেতা বলরাম পোদ্দার, অরুণ সরকার রানা প্রমুখ।

এমআইকে/এএস