ভোলার চরফ্যাশনে কৃষকের বাড়িতে হামলা, আহত ২০

0
112
Vola

Volaভোলার চরফ্যাশন উপজেলায় ভূমি বিরোধকে কেন্দ্র করে ভাড়াটে সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের হামলায় একই পরিবারের ৪ জনসহ ২০ জন আহত হয়েছে। এছাড়া মেহেদী নামের ৪ বছরের এক  শিশু ঘটনার পর থেকে নিখোঁজ রয়েছে।

এ সময় কৃষকের বাড়িতে হামলা, ভাংচুর ও লুটতরাজ করা হয়েছে। হামলার খবর পেয়ে গ্রামবাসী সন্ত্রাসীদের বহনকারী একটি মাইক্রোবাসে আগুন এবং অপরটি ভাংচুর করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ৬ শিশু এবং ৬ মহিলাসহ ১৩ জনকে উদ্ধার করে চরফ্যাসন হাসপাতালে ভর্তি করেছে। এ সময় একজনকে আটক করা হয়েছে।

জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে চরফ্যাসন উপজেলার শশীভূষণ থানার রসূলপুর ইউনিয়নের কালাম মোল্লার বাড়িতে এ তান্ডব চালিয়েছে নুরুল ইসলাম কেরানীর নেতৃত্বে ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা।

বুধবার এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত থানায় কোনো মামলা হয়নি বলে শশীভূষণ থানার অফিসার ইনচার্জ সামসুল আরেফিন জানিয়েছেন।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যার পর ২টি মাইক্রোবাস এবং ৯টি মোটরসাইকেলযোগে একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী ভাসানচর গ্রামের বালুর মাঠ এলাকায় কালাম মোল্লার বাড়িতে হামলা করে। হামলাকারীরা প্রতিবেশি আবু তাহের ফরাজি এবং সানু মাঝির বাড়ির লোকজনকে জিম্মি করে কালাম মোল্লার বাড়িতে হামলে করে। মধ্যে ঘুমন্ত কালাম মোল্লার ৪ বছরের শিশু মেহেদীকে তুলে ঘরের বাহিরে ছুড়ে মারে। ঘটনার পর থেকে মেহেদী নিখোঁজ রয়েছে।

সন্ত্রাসী হামলার খবর ছড়িয়ে পড়লে গ্রামের লোকজন ডাকাত পড়েছে ভেবে প্রতিরোধ গড়ে তোলে। গ্রামবাসীর প্রতিরোধের মুখে ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা মোটরসাইকেলগুলো নিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। বিক্ষুদ্ধ লোকজন ঘটনাস্থলে থাকা একটি মাইক্রোবাস আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয় এবং অপর মাইক্রোবাসটি ভাংচুর করে।

খবর পেয়ে শশীভূশষ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে ৩ জন পুরুষ এবং ৫ জন মহিলাকে আটক করে। আটক প্রত্যেক মহিলার সাথে একজন করে শিশু ছিল। এছাড়া সন্ত্রাসীদের  হামলায় আহত কালাম মোল্লা (৩৭), স্ত্রী জুলেখা (২৫) এবং কণ্যা ময়না (১৩)কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে।

কালাম মোল্লা জানান, ভাসানচর গ্রামের বালুর মাঠ এলাকার বাড়ির ৩ একর জমির মালিকানা নিয়ে চরফ্যাসন পৌরসভার ৭ নং ওয়ার্ডের নুরুল ইসলাম কেরানীর সাথে তার দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে থানা ও আদালতে ৪টি মামলা চলমান আছে।