মুন্সীগঞ্জে নির্বাচনী প্রচারণায় সমানভাবে এগিয়ে আ.লীগ ও বিএনপি

0
86
Munshiganj_

Munshiganj_মুন্সীগঞ্জে গজারিয়া উপজেলায় নির্বাচনী প্রচারণায় দলীয় প্রভাব বেশি থাকায় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি প্রার্থী সুবিধাজনক অবস্থানে রয়েছে।

এবারের গজারিয়া উপজেলা নির্বাচনে আ. লীগের সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম (মোটর সাইকেল), বিএনপি প্রার্থী জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক মো. মজিবুর রহমান (আনারস), আ.লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা (দোয়াত কলম), বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী গজারিয়া বিএনপির যুবদল সভাপতি ও বাউশিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান দেওয়ান মনা (ঘোড়া), ইমামপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি ও ইমামপুর ইউপি চেয়ারম্যান মুনছুর আহম্মেদ জিন্নাহ (টেলিফোন) এবং জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আলহাজ মো. কলিমুল্লাহ (কাপ পিরিচ) মধ্যে লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি।

এদিকে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আব্দুল মান্নান দেওয়ান মনা জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক উপমন্ত্রী আব্দুল হাইয়ের বিরুদ্ধে নির্বাচনী কর্মকাণ্ডে বাধা দেওয়ার অভিযোগ করেছেন। তিনি এই অভিযোগ এনে গজারিয়া থানায় জিডি করেছেন।

অন্যদিকে আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান রেফায়েত উল্লাহ খান তোতা জেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় অভিযোগ করেছেন আ. লীগ প্রার্থী আমিরুল ইসলাম তার নির্বাচনী ক্যাম্পে হামলা চালিয়েছেন, কর্মীদের মারধর করেছেন। অন্যদিকে আ. লীগ প্রার্থী আমিরুল ইসলাম পাল্টা অভিযোগ করছেন বিদ্রোহী প্রার্থী রেফায়েত উল্লাহ খান তোতার বিরুদ্ধে।

তবে জেলা রিটার্নিং অফিসার ও এডিসি মো. সারওয়ার মুর্শেদ চৌধুরী বলেছেন, এসব কারণে গজারিয়া উপজেলায় বাড়তি নিরাপত্তা বেস্টনি তৈরি করা হচ্ছে। সেনাবাহিনী, বিজিবি, আনসার ছাড়াও বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন থাকবে।

জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ইন্সপেক্টর মো. হামিদুর রহমান পিপিএম জানান, গজারিয়া উপজেলার ৪৫টি কেন্দ্রের মধ্যে ৩৩টি কেন্দ্রকেই অতি ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে অতিরিক্ত ১১০ জন পুলিশ তাদের দায়িত্ব পালন করবেন।

কেএফ