৩১ মার্চ নির্বাচন বড় দুদলের অস্তিত্বের লড়াই

0
52
dinajpur

দিনাজপুরদিনাজপুরের বিরল উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বড় দু’দলের অস্তিত্বের লড়াই হিসেবে প্রচারনা চালিয়ে যাচ্ছে বিএনপি ও আ’লীগের নেতাকর্মীরা। আ’লীগ-বিএনপি’র একক প্রার্থী থাকায় এ নির্বাচনকে অস্তিত্বের লড়াই হিসেবে নিয়েছেন। প্রার্থী ও সমর্থকদের বিরামহীনভাবে শহর-বন্দর, হাট-বাজার, গ্রাম-গঞ্জ, পাড়া-মহল্লা চষে বেড়াচ্ছেন।

বিরল উপজেলার ১১ টি ইউনিয়ন ও ১ টি পৌরসভা নিয়ে বিরল উপজেলা পরিষদ। এ উপজেলায় ১ লাখ ৬৯ হাজার ৫২২ ভোটার সংখ্যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ৮৫ হাজার ৫৩১ এবং মহিলা ভোটার সংখ্যা ৮৩ হাজার ৯৯১ জন। ৬৮ টি ভোট কেন্দ্রে ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। চেয়ারম্যান প্রার্থী আ.লীগের ডা. মানবেন্দ্র রায় (ঘোড়া), বিএনপির আ.ন.ম বজলুর রশিদ (মটর সাইকেল), স্বতন্ত্র প্রার্থী মোকারম হোসেন (দোয়াত কলম), আবু তালেব (টেলিফোন), জাপা.র প্রার্থী আনোয়ার চৌধুরী জীবন (কাপপ্রিচ),

ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আ.লীগ সমর্থিত সাংবাদিক আব্দুল কুদ্দুস সরকার (চশমা), বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত জামায়াতের উপজেলা আমীর এ, কে, এম আফজালুল আনাম (মাইক) ও কৃষক ফেডারেশনের নেতা আব্দুল খালেক বকুল (টিউবওয়েল) এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী আ’লীগ সমর্থিত বর্তমান মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা আরজুমান্দ বানু (হাঁস), বিএনপির  ফিরোজা বেগম (সোনা মেম্বার) (পদ্ম ফুল), স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহানাজ বেগম (প্রজাপতি) ও আফরোজা বেগম (কলস)। প্রার্থীরা মাইক্রোবাস, মটর সাইকেল শোডাউন, মাইকিং, পোষ্টারিং, মিছিল-মিটিং, পথসভা ও কর্মী সভার পাশাপাশি ব্যাপক গনসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন।

গত শনিবার বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী ভিপি হামিদুর রহমান সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে তার প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে দলীয় সমর্থিত প্রার্থী বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আ.ন.ম বজলুর রশিদকে র্পূণ সমর্থন দিয়েছেন। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আ.ন.ম বজলুর রশিদের উপজেলায় ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে কিন্তু আ.লীগ সমর্থিত প্রার্থী ডা. মানবেন্দ্র রায়ের তেমন পরিচিতি নেই বলে সাধারণ ভোটাররা জানান। তবে তার পিতা সাবেক প্রতিমন্ত্রি বাবু সতীশ চন্দ্র রায়ের পরিচয়ে কতটুকু ভোটারের মন জয় করতে পারবে এটাই দেখার বিষয়। ফলে বিএনপির আ.ন.ম বজলুর রশিদ ও আ.লীগের প্রার্থী ডা. মানবেন্দ্র রায়ের সাথে লড়াইয়ের সম্ভাবনা রয়েছে বলে সবার ধারনা। আ.লীগ সমর্থিত প্রার্থী ডা. মানবেন্দ্র রায় বিরলের রাজনীতিতে সম্পৃক্ততা না থাকায় আ.লীগ সমর্থিত অনেক সাধারণ ভোটারদের মাঝে ব্যাপক আলোচনা চলছে। নির্বাচনের দিন যতই ঘনিয়ে আসছে ততই প্রার্থীদের গুনাবলীসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রার্থীদের নিয়ে চুল ছেড়া বিশ্লেষন করছেন ভোটাররা। এদিকে বিএনপি, জামায়াত ও ছাত্র শিবিরের মজবুত সাংগঠনিক অবস্থান একে বারে উড়িয়ে দেয়া যাবে না।  আগামি ৩১ র্মাচ বিরল উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

টিআই/সাকি