সংরক্ষিত নারী আসন; কোটিপতি প্রার্থী ২৪ শতাংশ

0
68

Shujon_Nonদশম জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থীদের ২৪ শতাংশই কোটিপতি। নির্বাচন কমিশনে দেওয়া প্রার্থীদের হলফনামা বিশ্লেষণ করে এমন তথ্য জানিয়েছে  সুশাসনের জন্য নাগরিক (সুজন)।

মঙ্গলবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনের এ তথ্য প্রকাশ করে সুজন। সুজন দেখিয়েছে ন্যুনতম এক কোটি টাকা বা তার বেশি স্থাবর ও অস্থাবর সম্পদ আছে এমন প্রার্থীর সংখ্যা ২৪ শতাংশ।

সুজন নির্বাচন কমিশনে দেওয়া হলফনামা বিশ্লেষণ করে দেখেছে, সংরক্ষিত নারী আসনের প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগের ১০ জন কোটিপতি। তবে ৫ কোটি টাকার ওপরে সম্পদ রয়েছে ১ জনের। তিনি হলেন নিলুফার জাফর উল্লাহ। তার নিজের ও নির্ভরশীলের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের পরিমাণ ৩৬ কোটি ৪২ লাখ ৮১ হাজার ৬৭১ টাকা।

এদিকে জাতীয় পার্টির ১ জনের ৫ প্রদান কোটি টাকার ওপরে সম্পদ রয়েছে। আয়কর সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, আওয়ামী লীগের ৩৮ জনের মধ্যে ২৩ জন আয়কর প্রত্যয়নপত্র দিয়েছে। তবে জাতীয় পার্টির ৫ জনের মধ্যে ১ জন আয়কর প্রদান করেন।

প্রার্থীদের বাৎসরিক আয়ে দেখে গেছে, আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের মধ্যে ৬ জন ২ লাখের নীচে আয় করেন। আর জাতীয় পার্টির ৫ জনের মধ্যে ২ জনের আয় ৫ লাখ টাকার নীচে। এদিকে স্বতন্ত্র প্রার্থী ৩ জনের মধ্যে ২ জনের আয় ২৫ লাখের নীচে।

প্রার্থীদের পেশা বিশ্লেষণে দেখা গেছে, এ নির্বাচনের প্রার্থীদের মধ্যেও রয়েছে ব্যবসায়ীদের প্রাধান্য। আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের মধ্যে ১০ জন ব্যবসায়ী। জাতীয় পার্টির ব্যবসায়ীর সংখ্যা ২ জন।

এদিকে শিক্ষাগত যোগ্যতার দিক দিয়ে এগিয়ে আছেন সংরক্ষিত মহিলা আসনের প্রার্থীরা। এদের উচ্চ শিক্ষার হার বেশি। আওয়ামী লীগের প্রায় ৬৩ শতাংশ প্রার্থী স্নাতক ও স্নাতকোত্তর। জাতীয় পার্টি সকল প্রার্থীই স্নাতক ও স্নাতকোত্তর। তবে আওয়ামী লীগের প্রায় ৩৬ শতাংশ প্রার্থীর শিক্ষাগত যোগ্যতা এইচএসসি ও তার নীচে।

সংবাদ সম্মেলনে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন সুজনের সহকারী সমন্বয়কারী সানজিদা হক বিপাশা।

এতে আরও উপস্থিত ছিলেন  সুজনের সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম মজুমদার, জাতীয় কমিটির সদস্য মো জাহাঙ্গীর ও নাজমা হাসিন এবং ঢাকা সিটির সভাপতি মুজবা আলী।

এইচকেবি/