রাশিয়া-ক্রিমিয়ার ওপর অবরোধ আরোপ করলো ইইউ

0
65
eu impose sanction

eu impose sanctionরাশিয়া এবং ক্রিমিয়ার ওপর অবরোধ আরোপ করার ঘোষণা দিয়েছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন (ইইউ)। সোমবার বেলজিয়ামের রাজধানী ব্রাসেলসে অনুষ্ঠিত ইইউভুক্ত দেশগুলোর পররাষ্ট্রমন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠক শেষে এই ঘোষণা দেয়া হয়। খবর বিবিসির।

বিবিসি জানায়, বৈঠকে গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুসারে সদ্য স্বাধীন ঘোষিত ক্রিমিয়া এবং রাশিয়ার ২১ জন ব্যক্তির ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা এবং সম্পদ জব্দের বিষয়ে স্থির সিদ্ধান্তে পৌঁছায় ইইউ।

তবে কাদের ওপর এই অবরোধ করা হয়েছে সে সম্পর্কে এখনও কিছু জানা যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে, ইউক্রেন সমস্যার সমাধানের পথ খোলার রাখার লক্ষ্যে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভকে এই নিষেধাজ্ঞার বাইরে রাখা হতে পারে।

লিথুনিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী লিনাস লিংকেভিস জানান, ভবিষ্যতে আরও কঠোর পরদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারে ইইউ।

বিশেষজ্ঞরা অবশ্য মনে করছেন, অবরোধ আরোপের ফলে উল্টো ইউরোপই ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। কেননা, জ্বালানিসহ বিভিন্ন ভোগ্যপণ্যের জন্য অধিকাংশ ইইউভুক্ত দেশ রাশিয়ার উপর নির্ভরশীল। তাই কৌশলগত কারণে জার্মানিসহ ইইউ বলয়ের কয়েরকটি প্রভাবশালী রাষ্ট্র রাশিয়ার ওপর অবরোধ আরোপের বিপক্ষে অবস্থান করছে। কিন্তু ঘনিষ্ঠ মিত্র যুক্তরাষ্ট্র নাখোশ হতে পারে এই আশঙ্কার উচ্চ বাচ্য করছে না তারা।

উল্লেখ্য, ইইউ’র সাথে বাণিজ্যিক চুক্তি স্বাক্ষরে অস্বীকৃতির জের ধরে গত ২২ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের রাশিয়াপন্থী সাবেক প্রেসিডেন্ট ভিক্টর ইয়ানুকোভিচের পতনের পর ঘটনার শুরু। পরবর্তীতে দেশটির ক্রিমিয়া প্রদেশের রাজধানী সিম্পেরোফলে অস্ত্রধারীদের উপস্থিতি পরিস্থিতিকে আরও ঘনীভূত করে তোলে এবং এর কারণ হিসেবে রাশিয়াকে দায়ী করে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা দেশগুলো।

পরবর্তীতে যুক্তরাষ্ট্রসহ ইউরোপীয় দেশগুলো ক্রিমিয়ায় রাশিয়ার হস্তক্ষেপ অন্যায় এবং ইউক্রেনের সার্বভৌমত্ব বিরোধী বলে উল্লেখ করে আসছিল। এমনকি বর্তমান অবস্থান থেকে পিছু না হটলে রাশিয়ার ওপর অবরোধ আরোপের হুমকি দিচ্ছিল তারা।