রাশিয়ায় পাড়ি জমাতে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব পাঠিয়েছে ক্রিমিয়া

0
86
crimea

crimeaগণভোটের জোরে আগেই ইউক্রেন থেকে পৃথক হওয়ার ঘোষণা দিয়েছে ক্রিমিয়া। আর এবার রাশিয়ার সাথে যোগদানের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করেছে ক্রিমিয়ার ক্ষমতাসীন সরকার। সোমবার এই লক্ষ্যে রাশিয়ান ফেডারেশনের অংশ হতে আনুষ্ঠানিক প্রস্তাব পাঠিয়েছে ক্রিমিয়া। খবর বিবিসির।

ক্রিমিয়া ইউক্রনের অংশ হিসেবে পরিগণিত হলেও এই অঞ্চলের অধিবাসীরা রুশ জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী এবং এই অঞ্চলে রাশিয়ার প্রভাব কখনোই কমেনি।

ইউরোপিয়ন ইউনিয়নের (ইইউ) সাথে বাণিজ্যিক চুক্তি স্বাক্ষরে অস্বীকৃতির জের ধরে গত ২২ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনের রাশিয়াপন্থী সাবেক প্রেসিডেন্ট ভিক্টর ইয়ানুকোভিচের পতনের পর ঘটনার শুরু।

এ সময় ইয়াঙ্কোভিচের পতনের পর পশ্চিমারা রাশিয়ার বিপক্ষে কূটনৈতিক চালে জয়ী হওয়ার লক্ষণ দেখা গেলেও ইউক্রেনে দেশটির ক্রিমিয়া প্রদেশের রাজধানী সিম্পেরোফলে অস্ত্রধারীদের উপস্থিতি পরিস্থিতি উল্টো দিকে মোড় নেয়। হতভম্ব ইউক্রেন এবং পশ্চিমা দেশগুলো এজন্য রাশিয়াকে দায়ী করলেও অভিযোগ অস্বীকার করে রাশিয়া। তবে ইউক্রেনে সামরিক হস্তক্ষেপ অন্যায্য নয় বলে আখ্যায়িত করে রুশ সামরিক বাহিনীকে সতর্ক অবস্থানে থাকার নির্দেশ দেয়ার পর পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটে।

এমন টানা-হেঁচড়ার এক পর্যায়ে ক্রিমিয়া ইউক্রেন ছেড়ে রাশিয়ার অংশ হওয়ার ঘোষণা দেয় এবং গত রোববার জনমত যাচাইয়ের লক্ষ্যে গণভোটের আয়োজন করে। গণভোটে ক্রিমিয়াবাসী রাশিয়ার অংশ হওয়ার পক্ষে সমর্থন দেয়। এর ফলশুতিতে একদিন পরেই ইউক্রেন থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে স্বাধীনতার ঘোষণা দেয় ক্রিমিয়ার আঞ্চলিক আইনসভা। পাশাপাশি রুশ ফেডারেশনের অংশ করে নেয়ার জন্য রাশিয়ার সরকারের কাছে প্রস্তাব পাঠায় ক্রিমিয়া সরকার।

এদিকে ক্রিমিয়ানদের ইউক্রেন ছেড়ে রাশিয়ায় পাড়ি জমানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে উদ্ভূত পরিস্থিতি মোকাবেলায় জরুরি বৈঠকে বসেছে ইইউ। ধারণা করা হচ্ছে, এই বৈঠকে রাশিয়ার উপর প্রস্তাবিত অবরোধ আরোপসহ গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে।