বেড়েছে বরবটি, কাঁচামরিচ, কাঁচাকলা ও লেবুর দাম

0
61

মরিচ,বরবটিলেবু,কলা,রাজধানীর বাজারে বেড়েছে বরবটি, কাঁচামরিচ, কাঁচাকলা ও লেবুর দাম। তবে একই সঙ্গে কমেছে শশা, বেগুন ও ডিমের দাম। রাজধানীর নয়াবাজার ঘুরে দেখা যায়, কাঁচা মরিচ ১০ টাকা বেড়ে ৬০ থেকে ৮০ টাকা, কাঁচাকলা ৫ টাকা বেড়ে ৩০ টাকা হালি বিক্রি হচ্ছে। আর বরবটি ১০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৮০ টাকা কেজি দরে।

এদিকে গরমে ডিমের চাহিদা কমায় আর ২ থেকে ৩ টাকা কমেছে পণ্যটির দাম। হাঁসের ডিম ২ টাকা কমে ৩৪ টাকা, পাকিস্তানি মুরগি ৩ টাকা  কমে ৩৫ টাকা বিক্রি হচ্ছে।

নয়াবাজারের ডিম বিক্রেতা রফিকুল ইসলাম জানান, হাঁসের ডিমের চাহিদা এখন কম। সারা দিনে বিক্রি হয় কয়েক হালি। এর ওপর গরমে নষ্ট হওয়া শুরু করছে। তাই কমতির দিকে ডিমের দাম। তবে চাল, ডাল, মাংসসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

কাঁচাবাজার :
করলা ৬০ টাকা, উস্তে ৬০ টাকা, বাঁধাকপি ২০ টাকা, চিচিঙ্গা ৬০ টাকা, বরবটি ৮০ টাকা, আলু ১০ টাকা, বেগুন ৪০ থেকে ৫০ টাকা, ঝিঙ্গা ৬০ টাকা, শিম ৩০ থেকে ৪০ টাকা, টমেটো ৪০ টাকা, গাজর ২০ টাকা, লাউ ৪০ টাকা, শসা ৩৫ থেকে ৪৫ টাকা, মটরশুটি ৬০ টাকা, ঢেড়স ৬০ টাকা, পেঁপে ২০ টাকা, কাঁচামরিচ ৬০ থেকে ৮০ টাকা, লতি ৬০ টাকা, লেবু ৪০ থেকে ৪৫ টাকা, মিষ্টি কুমড়া ৪০ টাকা, মটরশুটি ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

মাছ:
বাজারে কাতল ৩৫০ টাকা, শিং মাছ ৮০০ টাকা কেজি, টেংরা ৩৫০ টাকা, পাঙ্গাস ১২০ থেকে ১৪০ টাকা, নলা মাছ ২২০ টাকা, তেলাপিয়া ১৬০ টাকা, কার্ফু মাছ ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া আইড় মাছ ৭০০ টাকা, কাটকা ৪০০ টাকা, বাচা মাছ ৭০০ টাকা, মেনি মাছ ৪০০ টাকা, চিংড়ি মাছ ৩৫০ থেকে ৯০০ টাকা, ফলি মাছ ৫০০ কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

মুদি :
মুদি দোকান ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিকেজি নতুন পেঁয়াজ ৩০ থেকে ৩২ টাকা , ভারতীয় পেঁয়াজ ২৮ টাকা, চায়না বড় রসুন ৭৫ টাকা, দেশি রসুন ৮০ টাকা, একদানা রসুন ৯০ টাকা, চায়না আদা ২০০ টাকা, মায়ানমারি আদা ১৪৫ টাকা, ইন্দোনেশিয়ান আদা ১৪০ টাকা, শুকনা মরিচ ২০০ টাকা, হলুদ ১২০ টাকা, হলুদের গুঁড়া ১৬০ টাকা, মরিচের গুঁড়া ২২০ টাকা, ধনিয়া ৮৫ টাকা, আটা (প্যাকেট) ৩২
টাকা, ময়দা (প্যাকেট) ৩৮ টাকা, দারুচিনি ৩০০ টাকা, এলাচি ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৭০০ টাকা, জিরা ৩৫০ টাকা থেকে ৪৫০ টাকা, বেশন ৫৫ টাকা, দেশি মশুর ডাল ১১০ টাকা, ভারতীয় মশুর ডাল ৮০ টাকা, খেসারি ডাল ৪৪ টাকা, মুগ ডাল ১৩০ টাকা, ছোলা ৫৫ টাকা, অ্যাংকর ডাল ৪২ টাকা, মাসকলাই ১২০ টাকা, বুট ৬০ টাকা, খোলা চিনি ৪৪ টাকা, প্যাকেট চিনি ৫২ টাকা ও প্রতি লিটার সয়াবিন খোলা ১১৫ টাকা ও বোতলজাত সয়াবিন ১১৯ টাকা হিসেবে বিক্রি হচ্ছে।

চাল:
আজ চালের বাজারে প্রতিকেজি নাজিরশাইল ৫২ থেকে ৫৫ টাকা, মিনিকেট ৫২ থেকে ৫৩ টাকা, লতা আটাশ ৩৮ থেকে ৪০ টাকা, মোটা চাল ৪২ টাকা, জিরা নাজির ৫২ টাকা, আটাশ ৪৫ টাকা, পাইজাম ৪০ টাকা, চিনি গুড়া ১১০ টাকা, পারিজা ৩৮ টাকা, বিআর-২৮-৪৪ টাকা,বিআর-২৯-৪৪ টাকা, হাসকি ৪২ টাকা, স্বর্ণা ৩২ টাকা থেকে ৩৪ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

ডিম:
আজকে বাজারে প্রতিহালি লেয়ার মুরগির লাল ও সাদা ডিম ২৭ টাকা, হাঁসের ডিম ৩৪ টাকা, পাকিস্তানি মুরগির ডিম ৩৫ টাকা, দেশি মুরগির ডিম ৪৫ টাকা হালি দরে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

শুঁটকিমাছ:
শুঁটকি মাছ প্রতি ১০০ গ্রাম চিংড়ি শুঁটকি মানভেদে ৩০ টাকা থেকে ৭০ টাকা, টাকি ৬০ টাকা, কাচকি ৬০ টাকা, লইট্যা শুটকি ৪০ থেকে ৫০ টাকা, বাইম মাছের শুঁটকি ৮০ টাকা, চাপিলা শুটকি ৬০ টাকা, পুঁটি মাছের শুঁটকি ৬০ টাকা, নলা মাছের শুঁটকি ৬০ টাকা, চান্দা মাছের শুঁটকি ৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া, প্রতি কেজি ইলিশ মাছের শুঁটকি ৭০০ টাকা ও কাইলা শুঁটকি ৬০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

মাংস :
মাংসের বাজারে গরুর মাংস ২৮০ টাকা, খাসির মাংস ৫০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। এক কেজি ওজনের প্রতিটি দেশি মুরগি বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে ৪১৫ টাকা, ব্রয়লার মুরগি ১৪০ টাকা, লেয়ার মুরগি ১৬৫ টাকা, হাঁস ৩০০ টাকা, ভেড়া ও ছাগীর মাংস ৪৫০ টাকা এবং কবুতরের বাচ্চা ২৫০ টাকা জোড়া হিসেবে বিক্রি হচ্ছে।

ফল :
আজ ফলের বাজারে চায়না ফুজি আপেল ১৪০ টাকা, সবুজ আপেল ১৭০ টাকা, বড় কমলা ২৫০ টাকা ডজন, মাঝারি সাইজের কমলা ডজন ২০০ টাকা, বেদানা ২০০ টাকা, মালটা ১২০ টাকা, কালো আঙ্গুর ২২০ টাকা, সাদা আঙ্গুর ১৬০ টাকা, লালমনি আম ৩০০ টাকা, স্ট্রবেরি ২০০ টাকা, পেয়ারা ১৫০ টাকা, নারকেল বড়ই ১০০ টাকা, আপেল বড়ই ১০০ টাকা, বাউকুল ৮০ থেকে ১০০ টাকা, বেল ১০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি
হচ্ছে।