মন্ত্রিসভায় উঠার অপেক্ষায় সম্প্রচার আইন: তথ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
46
তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। ফাইল ছবি

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, আমরা ইতোমধ্যে জাতীয় সম্প্রচার আইন শেষ পর্যায়ে এনেছি। দীর্ঘ দুই বছর আমরা সকল অংশীদারের সঙ্গে আলোচনা করেছি।  আইনটি মন্ত্রিপরিষদ যাবার অপেক্ষায় রয়েছে। আশা করছি মন্ত্রিপরিষদ অনুমতি দিলে, আগামী অক্টোবরে সংসদ অধিবেশনে পাঠাতে পারবো।

আজ মঙ্গলবার বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল মালিকদের সংগঠন অ্যাটকোর সঙ্গে বৈঠকে এ কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী। তথ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে তথ্য সচিব মরতুজা আহমেদ, অ্যাটকোর সভাপতি সালমান এফ রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক বাবুর নেতৃত্বে টেলিভিশন চ্যানেলের মালিক, বিভিন্ন গণমাধ্যমের প্রতিনিধি ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন  কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

তথ্যমন্ত্রী বলেন, জাতীয় সম্প্রচার আইনে সব টেলিভিশন সম্প্রচার কমিশনের আওতায় চলে যাবে। এতে  গণমাধ্যম, মালিকপক্ষ  ও  সরকার নিরাপত্তা পাবে। কারণ পুরো ব্যবস্থাটা একটি আইনের মধ্যে আসবে। এখন পর্যন্ত কিন্তু টেলিভিশনের জন্য কোনো আইন নেই। এ কারণে মাঝে মধ্যে আপনারা নানা সমস্যার সম্মুখীন হন, আমরাও হই। সুতরাং সম্প্রচার আইনটা টেলিভিশন, কমিউনিটি রেডিও, এফএম রেডিও আইনগত নিরাপত্তা দেবে। এটা খুবই ইতিবাচক পদক্ষেপ। উন্নত দেশগুলোতে যেভাবে সম্প্রচার কমিশন কাজ করে, আমরাও সেই আদলেই তৈরি করেছি। সবাই সহযোগিতা করেছেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ পরিচালনায় আইন-কানুন, বিধি –বিধান নীতিমালা প্রণয়নে অংশীদারের অংশগ্রহণ গুরুত্ব দিয়ে থাকি।  পরে মন্ত্রিসভা এবং সংসদের মধ্য দিয়ে আইন প্রণয়ন হয়।

মন্ত্রী বলেন, টেলিভিশনের সমস্যা কোনো একপক্ষীয় নয়, সকলের ঐকমত্যের ভিত্তিতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সভায় শুরুতে অ্যাটকোর পক্ষে বিভিন্ন দাবিদাওয়া তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন সালমান এফ রহমান।

তিনি বলেন, টেলিভিশনের জন্য কোনো আইন না থাকলেও তথ্য মন্ত্রণালয়ই আমাদের রেগুলেটরি। আপনারাই নিয়ন্ত্রণ করেন।  বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলোর বিষয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন। অতীতে আমাদের কমিটি মন্ত্রণালয়ের অনেক সহযোগিতা পেয়েছে। যখনই কোনো সমস্যা হয়েছে, তখনই আপনাদের সঙ্গে বসে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করেছি।  আমরা নতুন কমটি, তাই অতীতে আপনারা যেভাবে সহযোগিতা করেছেন-আগামীতেও তা অব্যাহত থাকবে আশা করছি।

তিনি বলেন,  বর্তমানে প্রযুক্তির ব্যবহারে আমরা নানামুখী চ্যালেঞ্জের মুখে পড়ি। সরকারও পড়ে, এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে হবে। আমার অনুরোধ থাকবে আপনারা একতরফা সিদ্ধান্ত নেবেন না, আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করবেন।

অর্থসূচক/আজম/এস