বিএনপি নেতাদের কারাগারে পাঠানোয় খালেদার ক্ষোভ

0
60
khaeda

khaedaবিএনপি নেতাদের কারাগারে পাঠানোর তীব্র নিন্দা, প্রতিবাদ ও ক্ষোভ প্রকাশ করে দলটির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া বলেন, এটা সরকারের চরম প্রতিহিংসামূলর জুলুম নির্যাতনের বহিঃপ্রকাশ। রোববার গণমাধ্যমে পাটানো এক বিবৃতিতে বেগম জিয়া এসব কথা বলেন।

বেগম জিয়া বলেন, কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে পালাক্রমে আটকে রেখে তারা তাদের সিংহাসনকে অবৈধভাবে আঁকড়ে থাকতে চাচ্ছে। অগণতান্ত্রিক, জনবিরোধী, মানবতাবিরোধী কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে তারা জনগণ থেকে এতো বেশি দূরে সরে গেছে যে, জনরোষ থেকে বাঁচতে জনদৃষ্টিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতেই মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, মির্জা আব্বাস ও আবদুস সালামকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তারা নিজেদের খেয়াল খুশি অনুযায়ী দেশ চালাচ্ছে এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, গণতন্ত্র আজ নেই বললেই চলে। সরকারের প্রতিহিংসামূলক এসব আচরণে তাদের অবস্থান স্পষ্ট হচ্ছে।

তিনি বলেন, এ দেশে সত্যের পক্ষে কথা বলার কোনো অধিকারই নেই। কেউ বললে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। আমরা এক অদ্ভুত হীরক রাজার দেশে বাস করছি। যেখানে এক ব্যক্তির খেয়াল খুশীতেই দেশ চলছে। যেখানে সত্যের পক্ষে কথা বলার কোনো অধিকার কারও নেই।

বেগম জিয়া বলেন, দেশবাসীর গণতান্ত্রিক ও মৌলিক অধিকারের পক্ষে এবং স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের পক্ষে কথা বলার অপরাধেই দলের মহাসচিবসহ কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের জামিন বাতিল করে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

তিনি অভিযোগ করেন,  বর্তমান অবৈধ শাসকগোষ্ঠী প্রতিনিয়ত বিরোধী দলের নেতা-কর্মীদেরকে বেছে বেছে গুম, খুন ও পাইকারী হারে গ্রেপ্তারের মধ্য দিয়ে গোটা দেশকেই এক ভয়ংকর বন্দীশালায় পরিণত করেছে।

অবিলম্বে সকল মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করে দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস ও ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আবদুস সালামকে নিঃশর্ত মুক্তি দেওয়ার জোর দাবি জানান তিনি।

উল্লেখ্য, রোববার বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস এবং দলের অর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক ও ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আব্দুস সালামের জামিন খারিজ করে আদারতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

এর আগে উচ্চ আদালত থেকে জামিন পেয়ে আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী রোববার নিম্ন আদালতে হাজির হন দলের ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস এবং দলের অর্থনৈতিক বিষয়ক সম্পাদক ও ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব আব্দুস সালাম।

এমআর/এএস