ভারী বর্ষণে ডুবেছে বন্দর নগরী, আরও বৃষ্টির পূর্বাভাস

প্রতিনিধি

0
61
দুই দিনের টানা বৃষ্টিপাতে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের অপেক্ষাকৃত উচুঁ এলাকাতেও জলবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। ফেসবুক থেকে নেওয়া ছবি

গত দুই দিনের টানা বৃষ্টি ও জোয়ারের পানিতে ফের চরম দুর্ভোগের মুখে পড়েছেন বন্দর নগরী চট্টগ্রামবাসীরা। নিম্নচাপ ও মৌসুমী বায়ু প্রভাবে গত বুধবার থেকে চট্টগ্রামে বৃষ্টিপাত শুরু হলেও শুক্রবার বিকেলে বৃষ্টিপাত থেমে যায়। পরবর্তীতে শনিবার মধ্যরাত থেকে ফের বৃষ্টিপাত শুরু হয়; যা এখনও চলছে। আজ সোমবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত ওই এলাকায় ১৯৬ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

দুই দিনের টানা বৃষ্টিপাতে বন্দর নগরী চট্টগ্রামের অপেক্ষাকৃত উচুঁ এলাকাতেও জলবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। ফেসবুক থেকে নেওয়া ছবি

পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের জানিয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টায় বৃষ্টিপাত আরও বাড়তে পারে।

আবহাওয়া অফিসের দায়িত্বরত কর্মকর্তা হারুনুর রশিদ অর্থসূচককে বলেন, আজ সোমবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘণ্টায় ১৯৬ দশমিক ৬ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। সেই সঙ্গে আগামী ২৪ ঘণ্টায় ভারী বর্ষণের আশঙ্কা আছে। এতে করে চট্টগ্রাম, পার্বত্য চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে পাহাড় ধস ছাড়া ভূমি ধসেরও ঝুঁকি রয়েছে।

তিনি জানান, গতকাল দিবাগত রাত ১টা ১৪ মিনিটে ভাটা শুরু হয়েছিল। সোমবার সকাল ৭টা ৩৮ মিনিটে জোয়ার শুরু হয়। বেলা ১টা ২৭ মিনিটে ভাটা শুরু হয় এবং রাত ৮টা ১৪ মিনিটে আবার জোয়ার শুরু হবে। এতে করে নগরের নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে যেতে পারে। মৌসুমী বায়ুর প্রভাবের কারণে সাগরে বাতাসের তীব্রতা বেশি। তাই চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দরকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

এদিকে নগরীর নিম্নাঞ্চলগুলোতে বিশেষ করে চকবাজার, বাকলিয়া, চান্দগাঁও, আগ্রাবাদ, হালিশহর, ষোলশহর, মুরাদপুর, বড়পোল, হালিসহর এলাকায় যথারীতি হাঁটুপানি থেকে কোমর পানিতে ডুবে গেছে।

এদিকে দেশের ভোগ্যপণ্যের বাজার চাক্তাই- খাতুনগঞ্জ ও আসাদগঞ্জ কোমর পানিতে তলিয়ে গেছে। এতে করে বেশিরভাগ ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে বলে জানা গেছে।

নগরীর আগ্রাবাদের গোসাইলডাঙ্গা এলাকার বাসিন্দা প্রীতম ভট্টাচার্য বলেন, আগে এই এলাকায় ভারী বর্ষণ হলে হালকা পানি উঠতো। কিন্তু গতকাল ও আজ এখানে প্রায় কোমর পানি উঠে গেছে। এরকম পানি আমি আগে এই এলাকায় দেখিনি।

এদিকে আগ্রাবাদের এক্সেস রোড এলাকার বাসিন্দা আলম খন্দকার জানান, আমার বাসার সামনে কোমর পানি। তাই অফিসে যেতে পারিনি। এই অবস্থায় কীভাবে কী করবো- সেটাই বুঝতে পারছি না।

দেবব্রত/এসএম/টি