পৃথিবীর শেষ শিকারী গোষ্ঠী ‘হাজদা’

অর্থসূচক ডেস্ক

0
68
আধুনিকতার ছোঁয়া লাগলেও এখনও পুরনো পদ্ধতি অনুসরণ করেন তারা।

হাজদা, পৃথিবীর সর্বশেষ শিকারী গোষ্ঠী। যারা জীবনধারণের জন্য কেবল শিকারের উপরই নির্ভরশীল। উত্তর তানজানিয়ার কিছু এলাকায় এরা এখনো টিকে আছে। প্রায় ৪০ হাজার বছর ধরে শিকার করে আসাই এদের ঐতিহ্য ও একমাত্র পেশা। শিকারের পর পশু সবার মধ্যেই সমানভাগে ভাগ করে দেওয়া হয়। শিকারের পরপরই যকৃত, ফুসফুস, হৃদপিণ্ড ইত্যাদি আগুনে ঝলসে খেয়ে ফেলা হয়। পরবর্তীতে তাঁবুতে ফিরে গিয়ে সে মাংস সবার মাঝে ভাগ করে দেওয়া হয়।

প্রায় ৩০ ধরনের প্রাণির মাংসকে খাদ্য হিসেবে গ্রহণ করে থাকে তারা।
সজারু শিকারে গর্তমুখী।
পাওয়া গেলো কাঙ্ক্ষিত শিকার।
শিকারের জন্য এখনো তারা তীর ধনুক, সড়কি, পশুর হাড় কিংবা পাথরের অস্ত্রের মতো পুরনো ও প্রাচীন পদ্ধতিই ব্যবহার করে থাকে।
খাদ্য তালিকায় বেলে ইঁদুর, সজারু, জেব্রা, বিভিন্ন ধরনের পাখি, সাপ ইত্যাদি রয়েছে।
তাঁবুতে অপেক্ষায় নারীরা।
বাওবাব ফলের ভেতরের অংশকে গুঁড়া করে ময়দার মতো ডলে রুটি বানিয়ে খায়।
মধু সংগ্রহে কয়েকজন পুরুষ।
চেরি জাতীয় কিছু গাছের ফল খায়, এদের কিছু কিছু প্রচুর ভিটামিন সমৃদ্ধ।
শিকার করা জেব্রার মাথা হাতে শিকারী দলের একজন।
বিষাক্ত তীর দিয়ে জেব্রার মতো পশু শিকার করা হয়।
শিকারের পরপরই ফুসফুস, হৃদপিণ্ড ইত্যাদি ঝলসে খাওয়া হয়।
আধুনিকতার ছোঁয়া লাগলেও শিকারে এখনও পুরনো পদ্ধতি অনুসরণ করেন তারা।

জীবনে কিছুটা আধুনিকতার ছোঁয়া লাগলেও তারা তাদের প্রাচীন পচ্ছতিতেই বেশ স্বচ্ছন্দে আছে বোঝা যায়। তবে ভালোও নেই হাজদারা। ভালো নেই তাদের টিকে থাকার লড়াই। ভূ-আবহাওয়া পরিবর্তনের কারণে  ক্রমশ সংকুচিত হয়ে আসছে খাদ্য ও জীবনযাপন। এরা বিলুপ্ত হয়ে গেলে বিলুপ্ত হয়ে যাবে পৃথিবীর সর্বশেষ শিকারী গোষ্ঠীও।

সূত্র: বিবিসি

অর্থসূচক/কে এম