ঢাকায় কোরবানির পশু জবাই ১১০৪ স্থানে  

অর্থসূচক ডেস্ক

0
329
কোরবানির ঈদে পশু জবাইয়ের জন্য ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে ৪৯৩টি স্থান নির্ধারণ করেছে সরকার।

আসন্ন কোরবানির ঈদে পশু জবাইয়ের জন্য ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে ১ হাজার ১০৪টি স্থান নির্ধারণ করেছে সরকার। এর মধ্যে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে ৫৪৯ ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে ৫৫৫টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

আজ বুধবার স্থানীয় সরকার বিভাগের সভাকক্ষে কোরবানীর পশু জবাই ও বর্জ্য অপসারণে সিটি কর্পোরেশনসমূহের প্রস্তুতি সংক্রান্ত এক সভায় এমন তথ্য জানানো হয়। সভায়  সভাপতিত্ব করেন  স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

কোরবানির ঈদে পশু জবাইয়ের জন্য ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে ৪৯৩টি স্থান নির্ধারণ করেছে সরকার।

সভায় জানানো হয়, এ বছর ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ১০টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানীর সংখ্যা ২ লাখ ২১ হাজার ও পশু জবাইয়ের জন্য ৫৪৯টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ১৩টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানীর সংখ্যা ২ লাখ ৭৫ হাজার ও পশু জবাইয়ের জন্য ৫৫৫টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ১টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানির সংখ্যা ৩০ হাজার ৭০০টি ও পশু জবাইয়ের জন্য ২১৭টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ৮টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানির সংখ্যা ১ লাখ ২৫ হাজার ও পশু জবাইয়ের জন্য ৩৬৫টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। খুলনা সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ১টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানীর সংখ্যা ১২ হাজার ও পশু জবাইয়ের জন্য ১৬৮টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। বরিশাল সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ৯টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানীর সংখ্যা ২০ হাজার ও পশু জবাইয়ের জন্য ১৩৯টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

সিলেট সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ১টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানির সংখ্যা ১৫ হাজার ও পশু জবাইয়ের জন্য ২৭টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ২৩টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানির সংখ্যা ১৫ হাজার ৯১২টি ও পশু জবাইয়ের জন্য ১৮৩টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ৪টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানির সংখ্যা ৯ হাজার ও পশু জবাইয়ের জন্য ১৯০টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে। রংপুর সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ৪টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানীর সংখ্যা ১ হাজার ৬৫০টি ও পশু জবাইয়ের জন্য ৯৯টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে এবং গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনে পশুর হাট ২২টি, সম্ভাব্য পশু কোরবানির সংখ্যা ২৮ হাজার ৩৯৮টি ও পশু জবাইয়ের জন্য ৫৪৯টি স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, নির্ধারিত স্থানে পশু জবাই নিশ্চিতে জনগণকে উৎসাহিত করতে সকল ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। সিটি কর্পোরেশন, পৌরসভাসহ স্থানীয় সরকারের অন্যান্য প্রতিষ্ঠান এ বিষয়ে নির্দিষ্ট পরিমান অর্থ ব্যয় করতে পারে।

সভায় ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আনিসুল হক গত বছরের তুলনায় এ বছর আরও বেশি পরিমানে মানুষ নির্ধারিত স্থানে কোরবানীর ব্যাপারে উৎসাহিত হবেন বলে আশা প্রকাশ করেন।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেন, ধীরে ধীরে এ বিষয়ে নগরবাসী সচেতন হচ্ছে। প্রাকৃতিক কারণে সফলতা গত বছর কম হলেও এ বছর তিনি সফল হবার ব্যাপারে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। সিটি কর্পোরেশনের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ইউনিট ২৪ ঘন্টার মধ্যে বর্জ্য নিষ্কাশনে সক্ষম।

সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন নারায়নগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সিলিনা হায়াৎ আইভি, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন, কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুল হক, রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র শরফুদ্দীন আহম্মেদ, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব ইকরামুল হকসহ উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

অর্থসূচক/এসএম