৭০% ফেসবুক-টুইটার ব্যবহারকারীই ‘নিপীড়ক’

আন্তর্জাতিক ডেস্ক

0
52
Facebook user
প্রতিদিন আমরা ফেসবুক ব্যবহার করলেও অনেকেই জানি না প্রয়োজনীয় খুঁটিনাটি অনেক বিষয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে অভ্যস্ত তরুণ প্রজন্মের ৭০ শতাংশই অনলাইনে অন্যের উপর পীড়নমূলক আচরণ করে। তাছাড়া অনলাইনে বিভিন্ন কারনে তাদের সঙ্গে ঘটে যাওয়া খারাপ আচরণগুলো নিয়েও তারা আলোচনা করতে চায় না।

ফেসবুক-টুইটারের মতো সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো তরুণদেরকে আরো উদ্বিগ্ন করে তুলছে বলে বিবিসির এক গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। গবেষণায় প্রতি ৩ জনের একজন সারাক্ষণই সাইবার-বুলিয়িংয়ের বা পীড়নের আতঙ্কে থাকে বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

পাশাপাশি ঘৃণা ছড়ানোর জন্য সবচাইতে বেশী ব্যবহৃত সোশ্যাল মিডিয়া হিসেবে ইনস্টাগ্রামের নাম উঠে এসেছে গবেষণায়।

যদি তাদের সেলফিতে লাইক না দেয়, তাহলে তারা খারাপ বোধ করে।

ডিচ দ্য লেবেল নামের একটি অ্যান্টি-বুলিয়িং বা পীড়ন-বিরোধী দাতব্য সংস্থার এই গবেষণার জরিপে অংশ নেওয়া ৭০ শতাংশ অংশগ্রহণকারীই অনলাইনে অন্যের উপর পীড়নমূলক আচরণ করে বলে স্বীকার করেছে। আর তাদের মধ্যে ১৭ শতাংশ দাবী করেছে তারা অনলাইনে অন্যের দ্বারা নিপীড়িত হয়েছে।

গবেষণায় অংশ নেওয়া ৪০ শতাংশ জানান, যদি তাদের সেলফিতে লাইক না দেয়, তাহলে তারা খারাপ বোধ করে। ৩৫ শতাংশ তাদের আত্মপ্রত্যয়ের ব্যাপারটি কি পরিমাণ ফলোয়ার বা অনুসারী রয়েছে তার উপর নির্ভর করে বলে জানিয়েছে।

সাইবার-বুলিয়িং ব্যাপক বিস্তৃতির কারণ হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়ার কারণে শিশুরা ‘বৈরিতার সংস্কৃতির’ মধ্যে বেড়ে ওঠাকেই দায়ী করেছেন একজন বিশেষজ্ঞ।

১২ থেকে ২০ বছর বয়সী মোট ১০ হাজার তরুণ তরুণীর উপর এই গবেষণা-জরিপটি চালানো হয়।

অর্থসূচক/কে এম