‘শেষবারের’ পরে আরও একবার সময় পেল সরকার

নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরি বিধি

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
45

নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাসংক্রান্ত বিধিমালা গেজেট আকারে প্রকাশে রাষ্ট্রপক্ষকে আবারও এক সপ্তাহের সময় দিয়েছে আপিল বিভাগ। তবে গত ২ জুলাই সরকারকে দুই সপ্তাহ সময় দিয়ে আপিল বিভাগ বলেছিল-এটাই ‘শেষ সুযোগ’।

আজ সোমবার দুই সপ্তাহের সময়ের আবেদন করলে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন ছয় বিচারকের আপিল বিভাগ এক সপ্তাহ সময় দেয়।

আজ সকালে অ্যাটর্নি জেনারেল সময় চেয়ে লিখিত আবেদন করলে প্রধান বিচারপতি তাকে বলেন, সব সময় মনে রাখবেন, সরকার এবং প্রধান বিচারপতির মধ্যে ব্রিজ হলেন অ্যাটর্নি জেনারেল।

High court
হাইকোর্ট।

এরপর সময় আবেদনের বিষয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, নট দিজ উইক।

এদিকে গতকাল প্রধান বিচারপতির সঙ্গে বৈঠক শেষে আইনমন্ত্রী বলেছেন, আগামী বৃহস্পতিবারে নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাসংক্রান্ত বিধিমালার গেজেট চূড়ান্ত হবে।

গত বছরের ৭ নভেম্বর বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাসংক্রান্ত বিধিমালা ২৪ নভেম্বরের মধ্যে গেজেট আকারে প্রণয়ন করতে সরকারকে নির্দেশ দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ।

১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর মাসদার হোসেন মামলায় ১২ দফা নির্দেশনা দিয়ে রায় দেওয়া হয়। ওই রায়ের আলোকে নিম্ন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলাসংক্রান্ত বিধিমালা প্রণয়নের নির্দেশনা ছিল।

এদিকে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক গতকাল রোববার সুপ্রিম কোর্টে প্রধান বিচারপতির সঙ্গে প্রায় এক ঘণ্টা একান্তে বৈঠকের পর সাংবাদিকদের বলেছিলেন, বিধিমালার গেজেট বৃহস্পতিবার নাগাদ হয়ে যাবে।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, আমরা সব ধরনের আলাপ-আলোচনা করছি, যেটা মহামান্য রাষ্ট্রপতির কাছে গ্রহণযোগ্য হবে সেটাই হবে।

মাসদার হোসেন মামলার চূড়ান্ত শুনানি করে ১৯৯৯ সালের ২ ডিসেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ সরকারের নির্বাহী বিভাগ থেকে বিচার বিভাগকে আলাদা করতে ঐতিহাসিক এক রায় দেয়।

ওই রায়ে আপিল বিভাগ বিসিএস (বিচার) ক্যাডারকে সংবিধান পরিপন্থি ও বাতিল ঘোষণা করে। একইসঙ্গে জুডিশিয়াল সার্ভিসকে স্বতন্ত্র সার্ভিস ঘোষণা করা হয়। বিচার বিভাগকে নির্বাহী বিভাগ থেকে আলাদা করার জন্য সরকারকে ১২ দফা নির্দেশনা দেয় সর্বোচ্চ আদালত।

টি