‘মাঝে মধ্যে বুদ্ধিজীবীদের বুদ্ধি এলোমেলো হয়ে যায়’

নিজস্ব প্রতিবেদক

0
59
Farhad-Mazhar
ফরহাদ মজহার

কবি, প্রাবন্ধিক, কলামিস্ট ফরহাদ মজহার ‘অপহরণ’ নাটক করেছিলেন। সরকারকে বিব্রত করতেই এই নাটক। বুদ্ধিজীবী তো, তাই মাঝে মধ্যে বুদ্ধি এলোমেলো হয়ে যায়।

আজ বৃহস্পতিবার পুলিশ সদর দপ্তরে আয়োজিত ‘সাম্প্রতিক আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি’ বিষয়ক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা জানান পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) শহীদুল হক।

Farhad-Mazhar
ফরহাদ মজহার

এমন কর্মকাণ্ডের জন্য তার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হবে কি না- সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আইজিপি বলেন, পুরো বিষয়টি পরবর্তীতে আরও খতিয়ে দেখা হবে। এরপর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

৩ জুলাই ভোর ৫টার দিকে শ্যামলীর হক গার্ডেনের বাসা থেকে বের হন ফরহাদ মজহার। ভবনের সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গেছে, ভোর ৫টা ৫ মিনিটে স্বাভাবিক ভঙ্গিতে সিঁড়ি দিয়ে নিচে নামেন তিনি। ভোর সাড়ে ৫টার দিকে একটি নম্বর থেকে ফরহাদ মজহার তার স্ত্রী ফরিদা আখতারকে ফোন করেন।

ফরহাদ মজহারের পরিবারের সদস্যরা জানান, ওই ফোন কলে তিনি বলেছিলেন, ‘ওরা আমাকে নিয়ে যাচ্ছে। ওরা আমাকে মেরে ফেলবে।’

ওই দিন রাত সাড়ে ১১টার দিকে যশোরের অভয়নগর এলাকায় খুলনা থেকে ঢাকাগামী হানিফ পরিবহনের একটি বাস থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়। পরের দিন ঢাকায় আনার পর আদালতে জবানবন্দি দেন তিনি।

তাকে উদ্ধারের পর ৩ জুলাই দিবাগত রাত ১টা ২০ মিনিটে খুলনার ফুলতলা থানায় সংবাদ সম্মেলনে পুলিশের খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি দিদার আহমেদ জানিয়েছিলেন, অপহরণ নয়; স্বেচ্ছায় ভ্রমণে ছিলেন ফরহাদ মজহার। তার ব্যাগে মোবাইল ফোনের চার্জার, শার্টসহ বেড়াতে যাওয়ার জন্য প্রয়োজনীয় জিনিস পাওয়া গেছে। ব্যাগ দেখে বোঝা যাচ্ছে, স্বেচ্ছায় ভ্রমণে এসেছেন তিনি।

তবে ফরহাদ মজহারের স্ত্রী-কন্যার অভিযোগ, তার সঙ্গে ব্যাগ এবং টাকা ছিল না।

ব্যাগের বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আইজপি বলেন, স্ত্রীকে বিভ্রান্ত করার জন্য পাঞ্জাবির নিচেও ব্যাগ নিয়ে ঘর থেকে বের হতে পারেন তিনি।

ঢাকা থেকে কীভাবে গেলেন- জানতে চাইলে আইজপি বলেন, পুলিশের ধারণা তিনি বাসেই গেছেন। পরে বাসে করেই ঢাকায় আসার পথে তাকে উদ্ধার করা হয়েছে। হানিফ পরিবহনের ম্যানেজার পুলিশকে জানিয়েছে ফরহাদ মজহার নিজেই গফুর নাম দিয়ে ঢাকায় ফেরার টিকিট কেটেছেন।

অর্থসূচক/মুন্নাফ/এমই/