প্রতিবারই আমার সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়ঃ মাশরাফি

অর্থসূচক ডেস্ক

0
81
Mashrafe

দলের বেশিরভাগ তরুণ পেসারের চেয়ে তার ফিটনেস ভালো। পারফরম্যান্সেও তাদের চেয়ে এগিয়ে। শেষ দুই বছরে বাংলাদেশের হয়ে তিনি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংখ্যক উইকেট শিকার করেছেন। সবচেয়ে বড় কথা, তার উজ্জীবিত নেতৃত্বে নিজেদের উজার করে দিয়ে দারুণ সব জয় ছিনিয়ে এনেছে টিম বাংলাদেশ। কিন্তু এতকিছুর পরও কারো কারো যেন মন ভরছে না। মনে যেন অন্য কিছু আছে। তাই কিছু দিন পর পরই তার সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়। অনেক হয়েছে, এবার যাওয়ার সময়-এমন একটা আবহ সৃষ্টির চেষ্টা করা হয়।

বাংলাদেশ ক্রিকেটের সফলতম অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা বড় আক্ষেপ করে বলেছেন এ কথা।

তিনি বলেছেন, দিনের পর দিন তিনি এমন পরিস্থিতির ভেতর দিয়ে যাচ্ছেন। যে কোনো সিরিজের দুটি ম্যাচ শেষ হতে না হতেই তার সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তোলা যেন নিয়ম হয়ে গেছে। খোদ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ভেতর থেকেই এ ধরনের প্রচারনায় ইন্ধন দেওয়া হচ্ছে বলে মনে করছেন ম্যাশ। তার মতে, অজ্ঞাত কারণে বিসিবির একটি মহল চায় না তিনি দেশের হয়ে খেলে যান।

Mashrafe-wicket

সোমবার ক্রিকইনফো মাশরাফিকে নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে। প্রতিবেদনের রিপোর্টারের কাছে তিনি তার দুর্ভাগ্যের কথা তুলে ধরেন।

মাশরাফি বলেন, এ ধরনের বিষয়কে তিনি যতটা পারেন উপেক্ষা করে চলেন। নিজের মতো করে খেলে যাওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু বাস্তবে এমন পরিবেশে ভালো খেলা খুবই কঠিন।

ক্রিকইনফোর প্রতিবেদনে বলা হয়, শেষ দুই বছরে উইকেট শিকারের দিক থেকে মাশরাফির অবস্থান দ্বিতীয়। ২০১৫ বিশ্বকাপের পর থেকে সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি পর্যন্ত সময়ে বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেট নিয়েছেন মোস্তাফিজুর রহমান, উইকেট সংখ্যা ৪৪। তারপরেই ম্যাশের অবস্থান। তিনি উইকেট পেয়েছেন ৪২টি। আর ৩৪ উইকেট নিয়ে তৃতীয় স্থানে আছেন সাকিব আল হাসান।

এমন পারফরম্যান্সের পরও মাশরাফির সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন। চারদিকে ‘চলে যাও, চলে যাও’ রব। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পর নতুনভাবে ওই রব ডালপালা মেলেছে। বিসিবির আনাচে-কানাচে ফিসফাস, মাশরাফিকে অবসর নিতে বাধ্য করা হবে!

Mashrafe

ক্রিকইনফোকে মাশরাফি বলেন, প্রায় প্রত্যেক সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ পর আমার চলে যাওয়ার বার্তা আসে।

‘এভাবে খেলা কঠিন। আমি জানি একটি সিরিজের দুই ম্যাচ পর আমার বিদায় নিয়ে কথা শুনতে হবে। এই চ্যালেঞ্জটা আমাকে নিতে হচ্ছে।’

দুই-একটা ম্যাচে যে মাশরাফি খারাপ করেন না তেমনও নয়। কিন্তু ঠিকই পরের ম্যাচেই তিনি ফিরে আসার চেষ্টা করেন। আর নিজেই বিষয়টি স্বীকার করেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে ক্রিকইনফোকে তিনি  একটি উদাহরণও দেন। তিনি বলেন, আয়ারল্যান্ডে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আমি ৬.৩ ওভারে ৫৮ রান দিয়েছিলাম। আমার মনে হয়েছিল আমার বোলিং পদ্ধতিতে কিছু একটার অভাব আছে। তাই পরদিন নেটে প্রধান কোচ এবং বোলিং কোচের সামনে বেশি বেশি বল করি। দুজনের সঙ্গেই কথা বলি। তারপর শুধু উইকেটরক্ষককে রেখে বল করে যাই। আমি আমার সমস্যা শুধরে নিয়েছিলাম। যতটা সম্ভব আমি চেষ্টা করছি। কিন্তু এই পরিবেশে খেলা কঠিন।