আজ কবি আহসান হাবীবের ৩২তম মৃত্যুবার্ষিকী

অর্থসূচক ডেস্ক

0
90

স্বাধীনতা-উত্তর বাংলাদেশের সাহিত্য অঙ্গনে যারা অভিভাবকের ভূমিকা রেখেছিলেন তাদের একজন আহসান হাবীব। দীর্ঘ দিন দৈনিক বাংলা পত্রিকার সাহিত্য সম্পাদক পদের দায়িত্ব পালন করেন খ্যাতিমান এই কবি ও সাহিত্যিক। তাছাড়া চল্লিশের দশকের অন্যতম প্রধান আধুনিক কবি হিসেবেও পরিচিত তিনি। তার ৩২তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ।

১৯৩৩ সালে স্কুল ম্যাগাজিনে তার প্রবন্ধ ‘ধরম’ প্রকাশিত হয় ৷ পরে ১৯৩৪ সালে প্রথম কবিতা ‘মায়ের কবর পাড়ে কিশোর’ পিরোজপুর গভর্নমেন্ট স্কুল ম্যাগাজিনে ছাপা হয়। কলকাতায় এসে ১৯৩৭ সালে দৈনিক তকবির পত্রিকার সহ-সম্পাদকের কাজে নিযুক্ত হন । পরবর্তীকালে তিনি ১৯৩৭ সাল থেকে ১৯৩৮ সাল পর্যন্ত কলকাতার বুলবুল পত্রিকা ও ১৯৩৯ সাল থেকে ১৯৪৩ সাল পর্যন্ত মাসিক সওগাত পত্রিকায় কাজ করেন ৷ এছাড়া তিনি আকাশবাণীতে কলকাতা কেন্দ্রের স্টাফ আর্টিস্ট পদে ১৯৪৩ থেকে ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত কাজ করেন।

১৯৪৭ সালে প্রকাশিত হয় তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘রাত্রিশেষ’। ১৯৫০ সালে স্থায়ীভাবে ঢাকায় বসবাস শুরু করেন।
দৈনিক আজাদ, মাসিক মোহাম্মদী, দৈনিক কৃষক, দৈনিক ইত্তেহাদ ও সাপ্তাহিক প্রবাহ পত্রিকায় সাংবাদিকতার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। ১৯৬৪ সাল থেকে আমৃত্যু দৈনিক পাকিস্তান ও পরে দৈনিক বাংলায় সহকারী সম্পাদক ও সাহিত্য সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

তার হাতে সাহিত্যে অভিষেক ঘটেছে আজকের খ্যাতনামা প্রবীণ কবি-সাহিত্যিকদের অনেকেরই। সাহিত্যে অসামান্য অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি পেয়েছেন বাংলা একাডেমী ও একুশে পদকসহ অনেক পুরস্কার ও সম্মাননা।

আহসান হাবীব ১৯৪৭ সালের ২১ জুন বিয়ে করেন । আহসান হাবীব দুই কন্যা (কেয়া চৌধুরী ও জোহরা নাসরীন) ও দুই পুত্রের (মঈনুল আহসান সাবের ও মনজুরুল আহসান জাবের) জনক ছিলেন। পুত্র মঈনুল আহসান সাবের একজন স্বনামখ্যাত বাংলা ঔপন্যাসিক।

ত্রিশোত্তর আধুনিক বাংলা কবিতার ধারায় পূর্ব বাংলায় নব্য আধুনিকতার পথিকৃৎ কবি আহসান হাবীবের ৩২তম মৃত্যুবার্ষিকী আজ। ১৯৮৫ সালের এই দিনে ঢাকায় ইন্তেকাল করেন তিনি।

অর্থসূচক/টি এম/কে এম